kalerkantho


সংসদীয় স্থায়ী কমিটির গোলটেবিলে আইনুন নিশাত

দেশের ১৭ শতাংশ এলাকা ডোবার আশঙ্কা সত্য নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়ে বাংলাদেশের ১৭ শতাংশ এলাকা ডুবে যাবে বলে যে আশঙ্কার কথা বলা হচ্ছে, তা সত্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন পরিবেশ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. আইনুন নিশাত। গতকাল রবিবার জাতীয় সংসদ ভবনের আইপিডি সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি অভিমত তুলে ধরেন।

‘জলবায়ু অভিঘাত হতে বাংলাদেশের উপকূলকে সুরক্ষা : বর্ষাকালে সামুদ্রিক জোয়ারের প্লাবন থেকে রক্ষায় করণীয়’ শীর্ষক এই গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। কমিটির সভাপতি ড. হাছান মাহমুদের সভাপতিত্বে বৈঠকে বক্তব্য দেন বন ও পরিবেশ উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, সংসদ সদস্য পঞ্চানন বিশ্বাস, শেখ মো. নূরুল হক, পঙ্কজ নাথ, দিদারুল আলম ও জেবুন্নেসা আফরোজ, ড. আইনুন নিশাত, উন্নয়ন ধারা ট্রাস্টের আমিনুর রসুল বাবুল, কোস্ট ট্রাস্টের রেজাউল করিম প্রমুখ।

আগামী দিনে উপকূলীয় বাঁধের স্থায়িত্ব নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেন ড. আইনুন নিশাত। তিনি বলেন, জলবায়ুর বিরূপ প্রভাবে ভবিষ্যতে ২০ ফুটের ওপরে জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা রয়েছে। তাই দ্রুত ওই বাঁধগুলো ২০ ফুট উঁচু করার পদক্ষেপ নিতে হবে। তিনি বিদেশিদের দ্বারা পরিচালিত ডেল্টা কমিশন আদৌ কোনো কাজে আসবে কি না তা ভেবে দেখার অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশ বাংলাদেশের কাছ থেকে উপকূল রক্ষার পদ্ধতি শিখতে চায়।

আইনুন নিশাত বলেন, ‘এ বিষয়ে বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে। অনেকে বলছেন বাংলাদেশের ১৭ শতাংশ এলাকা ডুবে যাবে।

তা সত্য নয়। বাঁধ না থাকলে বাংলাদেশ ডুববে। কিন্তু আমাদের উপকূলীয় এলাকায় ১২-১৫ ফুট উঁচু বাঁধ রয়েছে। একমাত্র জলোচ্ছ্বাস হলে উপকূলীয় এলাকা প্লাবিত হতে পারে। কিন্তু তত দিনে অধিক উঁচু ও টেকসই বাঁধ নির্মাণ করা কঠিন কোনো কাজ হবে না। ’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ঝুঁকি মোকাবিলায় নানা পদক্ষেপ নেওয়া হলেও এ ক্ষেত্রে সমন্বয়ের যথেষ্ট অভাব রয়েছে।


মন্তব্য