kalerkantho


ইঞ্জিন রুমে ত্রুটি

বরিশালে অয়েল ট্যাংকারে আগুন চারজন দগ্ধ

বরিশাল অফিস   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বরিশালের কীর্তনখোলা নদীতে নোঙর করা যমুনা পেট্রোলিয়ামের তেলবাহী এমটি অ্যাঙ্করেজ নামের একটি ট্যাংকারে শনিবার রাতে আগুন ধরে যায়। ওই ঘটনায় জাহাজের চারজন দগ্ধ হয়েছেন।

তাঁরা হলেন জাহাজের স্টাফ মো. শহিদুল ইসলাম (৫০), মো. হুমায়ুন কবির (৫০), গ্রিজার নাজমুল (৪৫) ও মো. আবু সুফিয়ান (২৪)। তাঁদের মধ্যে সুফিয়ান বাদে অন্য তিনজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। সুফিয়ানকে শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়।

ঘটনার পর গতকাল রবিবার দুপুরে জাহাজটি পরিদর্শন করেছেন যমুনা পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের ছয়জন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। জাহাজের তেল মজুদ রাখার স্থলে উৎপাদিত গ্যাস বের হয়ে ইঞ্জিন রুমে জমা থাকায় এ অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে বলে যমুনা অয়েল কম্পানির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। তবে তদন্ত দল এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

পরিদর্শন দলে থাকা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুই কর্মকর্তা কালের কণ্ঠকে জানান, জাহাজটি পরিদর্শনের সময়ে বেশ কিছু ত্রুটি লক্ষ করা গেছে। এর মধ্যে ইঞ্জিন রুমে তেলের গাদ (তলানি) থাকা, অয়েল সিলের ত্রুটি, ইঞ্জিন রুমের সঙ্গে তেল মজুদ এলাকার বিভিন্ন সংযোগস্থলের ত্রুটি থাকায় তেল মজুদ এলাকায় সৃষ্ট গ্যাস ইঞ্জিন রুমে এসে পড়ায় এ ঘটনা ঘটেছে। ওই সব এলাকা থেকে এখনো গ্যাস নির্গমন হচ্ছে।

ট্যাংকারে ত্রুটি-বিচ্যুতিগুলো ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানানো হবে।

যমুনা পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের উপব্যবস্থাপক ও বরিশাল ডিপো ইনচার্জ মো. হাবিবুর রহমান বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে গতকাল দুপুরে চট্টগ্রামের প্রধান কার্যালয় থেকে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ট্যাংকারটি পরিদর্শন করেছেন। প্রত্যক্ষদর্শী ও জাহাজের ব্যাগটেন্ডল কাইয়ুম হোসেন জানান, শনিবার রাতে জাহাজে তেল আনলোড করার কথা ছিল। সে অনুযায়ী যমুনা ডিপোতে পৌঁছাবার জন্য জাহাজ চালু করা হয়। ইঞ্জিন চালুর করার সঙ্গে সঙ্গেই ইঞ্জিন রুমে আগুন জ্বলে ওঠে।


মন্তব্য