kalerkantho


বাকশিস জাতীয় সম্মেলন

কলেজ শিক্ষকদের ওপর ‘চটলেন’ শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



নিজেকে শিক্ষকদের ‘কর্মী’ আখ্যা দিয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ‘শিক্ষকদের কোনো অনুষ্ঠানে আসা আমার জন্য পুণ্যের। শিক্ষকদের কাছ থেকে অনেক কিছু শুনতে, জানতে ও শিখতে পারি। ’

তবে শিক্ষামন্ত্রীর এই মুগ্ধতা কতক্ষণ বজায় ছিল বলা মুশকিল। তাঁর বক্তব্যের একপর্যায়ে শিক্ষাক্ষেত্রে সরকারের নানামুখী উন্নয়ন এবং স্বাধীনতার পর দেশের উন্নয়নের কথা বলার সময় হৈচৈ শুরু করেন শিক্ষকরা। শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যে নিজেদের দাবি-দাওয়ার বিষয়ে সরাসরি কোনো উত্তর না পেয়ে উত্তেজিত হয়ে ওঠেন তাঁরা। এ সময় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আপনারা শিক্ষকরা দেশের উন্নয়নের কথা শুনতে চান না? সেই সময় শিক্ষকরা জবাব দেন, না না। আমাদের দাবির বিষয়ে জানতে চাই। ওই সময় শিক্ষামন্ত্রী ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বলেন, ‘দেশের উন্নয়নের কথা না শুনলে আপনারা শিক্ষার্থীদের কী শেখাবেন? আপনাদের কাছ থেকে শিখলাম, কেউ বক্তব্য দেওয়ার সময় হৈচৈ করতে হয়। ’

গতকাল শনিবার সকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতির (বাকশিস) জাতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন। বাকশিসের সভাপতি অধ্যক্ষ আসাদুল হকের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাকশিসের প্রধান উপদেষ্টা অধ্যক্ষ কাজী ফারুক আহমেদ। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক নুরুন নবী সিদ্দিকী, শিক্ষক নেতা আজিজুল ইসলাম, মোহাম্মদ আলী চৌধুরী প্রমুখ।

সারা দেশ থেকে কলেজের কয়েক হাজার শিক্ষক সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন। সকালে উদ্বোধনী পর্বের পর বিকেলে সাংগঠনিক পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে বেসরকারি কলেজ জাতীয়করণে সঠিক নীতিমালা, শিক্ষকদের পদোন্নতি, এমপিওভুক্তির পর বছরের পর বছর বেতন না পাওয়া আর বাড়িভাড়া, চিকিৎসা ভাতা, বৈখাশী ভাতাসহ একাধিক দাবি তুলে ধরেন শিক্ষকরা। শিক্ষকদের দাবির বিষয়ে নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘আমি সরকারের হয়ে কাজ করি বলে ভাববেন না আমার কাছে টাকাভর্তি সিন্দুক আছে আর আমি তার চাবি নিয়ে ঘুরে বেড়াই। ’

সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রীর আগে দেওয়া বক্তব্যে বাকশিসের প্রধান উপদেষ্টা অধ্যক্ষ কাজী ফারুক আহমেদ পেশাগত জীবনে বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের হতাশার কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘যে চাকরিতে কোনো পদোন্নতি নেই, সেটা কোনো চাকরি হতে পারে না। আমরা পদোন্নতি চাই, আমরা এমপিওর সঠিক প্রয়োগ চাই। ’


মন্তব্য