kalerkantho


মধুখালী ও ঈশ্বরগঞ্জ

এক রাতে ২৯টি ল্যাপটপ চুরি দুই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর ও ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ফরিদপুরের মধুখালী ও ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে শুক্রবার রাতে ২৯টি ল্যাপটপ চুরি হয়েছে। এর মধ্যে মধুখালীর আব্দুর রহমান টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে ১৭টি এবং ঈশ্বরগঞ্জের সাকূয়া আদর্শ বিদ্যানিকেতন থেকে ১২টি ল্যাপটপ চুরি হয়।

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের ব্রাহ্মণকান্দা এলাকার আব্দুর রহমান টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজকে দেড় বছর আগে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় থেকে ১৭টি ল্যাপটপ দেওয়া হয়। ল্যাপটপগুলো দিয়ে কলেজের শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব চালু করা হয়। কলেজের অধ্যক্ষ ইসহাক হোসেন জানান, চোরের দল কলেজ ভবনের পেছনের পানির পাইপ বেয়ে ওপরে উঠে ল্যাবের তালা ভেঙে ল্যাপটপগুলো চুরি করে নিয়ে যায়। গতকাল শনিবার সকালে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা কলেজে এসে এ চুরির বিষয়টি জানতে পারে।

মধুখালী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাইফুল আলম জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ব্যাপারে ওই কলেজের অধ্যক্ষ বাদী হয়ে মধুখালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

অন্যদিকে, ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের সাকূয়া আদর্শ বিদ্যানিকেতনের (উচ্চ বিদ্যালয়) আইসিটি কক্ষ থেকে ১২টি ল্যাপটপ চুরি করে দুর্বৃত্তরা। উপজেলার তারুন্দিয়া ইউনিয়নে বিদ্যালয়টির অবস্থান। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানায়, এক বছর আগে সরকারিভাবে ১৭টি ল্যাপটপ দেওয়া হয় বিদ্যালয়টিতে।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ছাড়াও শিক্ষকরা ল্যাপটপগুলো ব্যবহার করে আসছিলেন।

বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক হাসিম উদ্দিন আহম্মেদ জানান, বিদ্যালয়ের নাইট গার্ড মো. জালাল উদ্দিন ভোরে আইসিটি কক্ষের প্রধান দরজা ভাঙা দেখতে পেয়ে প্রধান শিক্ষককে জানান। পরে অন্যান্য শিক্ষকসহ তিনি ঘটনাস্থলে এসে দেখেন কক্ষের ভেতর থাকা ১৭টি ল্যাপটপের মধ্যে ১২টি খোয়া গেছে। বাকি পাঁচটি ল্যাপটপসহ অন্য জিনিসপত্র এদিক-সেদিক পড়ে ছিল। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি বদরুল আলম জানান, বিষয়টি রহস্যজনক। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য