kalerkantho


কথামালা ও তথ্যচিত্র প্রদর্শনে আনিসুজ্জামানের জন্মদিন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



কথামালা ও তথ্যচিত্র প্রদর্শনে আনিসুজ্জামানের জন্মদিন

গতকাল জাতীয় জাদুঘরে ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের ৮০তম জন্মদিন উদ্‌যাপন করা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

কথামালা আর তথ্যচিত্র প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে দেশবরেণ্য ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের ৮০তম জন্মদিন উদ্‌যাপন করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মাসুদ করিম নির্মিত আনিসুজ্জামানের জীবন ও কর্মভিত্তিক ‘বাতিঘর’ তথ্যচিত্রের প্রিমিয়ার হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাঠানো একটি বাণী পাঠ করে শোনানো হয়। অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের ধারণকৃত বক্তব্য প্রচারের পর ৪৫ মিনিটের ‘বাতিঘর’ তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। অধ্যাপক আনিসুজ্জামানকে অনুজ বিশেষ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এ রকম সুশীল রুচিসম্পন্ন ধীরস্থির পণ্ডিত মানুষ আমাদের সমাজে বিরল। তার মতো একজন মানুষের বন্ধু বা ভাই হওয়া গৌরবের বিষয়। আনিস আদর্শনিষ্ঠ মানুষ এবং তার সম্মাননাবোধ বড় প্রখর। তার বচন চমৎকার, শব্দচয়ন যথাযথ। তার বক্তৃতায় শৃঙ্খলা অনুধাবন করা যায়। তার বক্তব্যে তার চিন্তাধারা বা বিশ্লেষণ বা বাণীর ক্রমবিকাশ অতীব সুন্দর।

তাকে কখনো কথা বলতে অপ্রস্তুত মনে হয় না। ’ তিনি বলেন, ‘আনিস সর্বদা সপ্রতিভ, প্রাণময় ও রসিক। তার দীর্ঘ জীবন কামনা করি। সৃজনশীলতায় এই দীর্ঘ জীবন সমুজ্জ্বল থাকবে বলে বিশ্বাস করি। সমাজ, শিক্ষা ও সাহিত্য তার কাছ থেকে আরো পাবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস। ’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক পবিত্র সরকার। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

অধ্যাপক আনিসুজ্জামান চিকিৎসকের পরামর্শে বিশ্রামে থাকার কারণে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে পারেননি। তবে তাঁর সহধর্মিণী সিদ্দিকা জামান ও পরিবারের সদস্যরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের সমগ্র জীবন ও সাহিত্য নিয়ে ভারতীয় লেখক পার্থ সারথি রায় রচিত ‘ঠিকানা’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

ন্যাশনাল পারফরম্যান্স আর্ট ফেস্টিভ্যাল শুরু : দর্শকের সঙ্গে শিল্পীর সরাসরি সংযোগের অন্যতম এক মাধ্যম পারফরম্যান্স আর্ট। শিল্পীর অনুভূতি প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে দর্শকের তাত্ক্ষণিক প্রতিক্রিয়াও অনুভব করা যায়। রাজধানীর শিল্পরসিকদের জন্য বৃহৎ পরিসরে এ শিল্পমাধ্যম অবলোকনের সুযোগ তৈরি হয়েছে।

গতকাল শুরু হয়েছে দুই দিনের ‘ন্যাশনাল পারফরম্যান্স আর্ট ফেস্টিভ্যাল’। শিল্পকলা একাডেমির আটটি স্থানে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ উৎসব। একাডেমির জাতীয় সংগীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র চত্বরে বিকেলে উৎসবের উদ্বোধন করেন বরেণ্য চিত্রশিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিল্পী কালিদাস কর্মকারকে আজীবন সম্মাননা এবং শিল্পী মাহবুবুর রহমানকে পারফরম্যান্স আর্ট সম্মাননা প্রদান করা হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। আলোচনায় অংশ নেন নাট্যজন আতাউর রহমান। সভাপতিত্ব করেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। পিপলস থিয়েটার অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত উৎসবের সহযোগিতায় রয়েছে শিল্পকলা একাডেমি।

সব মিলিয়ে পারফরম্যান্স আর্ট ফেস্টিভ্যালে থাকছে ১৪টি পরিবেশনা। একাডেমির সংগীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র চত্বর এবং লবি, নন্দন মঞ্চ, উন্মুক্ত প্রাঙ্গণ, জাতীয় নাট্যশালার লবি, জাতীয় চিত্রশালার লবি ও দ্বিতীয় তলা এবং চারু প্রাঙ্গণে বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত উপস্থাপিত হবে বিষয়ভিত্তিক এসব পরিবেশনা।


মন্তব্য