kalerkantho


চট্টগ্রামে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল

মন্ত্রণালয় বা সরকার চাইলে কখনো প্রশ্ন ফাঁস হতো না

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



শিক্ষা মন্ত্রণালয় বা সরকার চাইলে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হতো না বলে মন্তব্য করেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। তিনি বলেন, ‘যদি কোনো পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস হয়, তাহলে মনে করতে হবে এর পেছনে পরীক্ষা কমিটির গাফিলতি রয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় কিংবা সরকার যদি সিদ্ধান্ত নেয় প্রশ্ন ফাঁস হবে না, তাহলে কোনোভাবেই প্রশ্ন ফাঁস হওয়ার কথা নয়। যদি প্রশ্ন ফাঁস হয়েও থাকে, তাহলে বুঝতে হবে আগে থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। ’

গতকাল শুক্রবার দুপুরে চট্টগ্রাম মিউনিসিপ্যাল মডেল হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজে ‘শব্দকল্পদ্রুম পিপীলিকা বাংলা উৎসবে’ এসে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মুহম্মদ জাফর ইকবাল এসব কথা বলেন।

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে জাফর ইকবাল বলেন, ‘প্রশ্নপত্রের যেকোনো একটি সেট ফাঁস হলো। কিন্তু সব সেট ফাঁস হওয়ার তো প্রশ্নই ওঠে না। সুতরাং বোঝা যাচ্ছে মূল পরিকল্পনার ভেতরে সমস্যা আছে। যাঁরা প্রশ্নপত্র তৈরির দায়িত্বে আছেন তাঁদের কোনো শাস্তি হচ্ছে না। তাঁদের যদি ১০ বছরের জেল হতো তাহলে প্রশ্নপত্র ফাঁস হতো না। ’

হতাশা প্রকাশ করে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, ‘রাষ্ট্র হিসেবে আমরা ভালো করে একটা পরীক্ষা নিতে পারি না, এর চেয়ে বড় ব্যর্থতা আর কী হতে পারে? যে শিক্ষার্থী প্রশ্নপত্র ফাঁস দেখেনি, নিজের মতো করে পরীক্ষা দিয়েছে, সে যখন দেখে একজন ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিয়ে তার চেয়ে ভালো কলেজে বা বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছে, তখন তার যে মনোবেদনা, তাকে কিভাবে কী বলে সান্ত্বনা দেব, সেটা ভেবে আমি কূল পাই না।

প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধ করে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব মন্তব্য করে জাফর ইকবাল বলেন, ‘মেডিক্যালের সর্বশেষ ভর্তি পরীক্ষায় তারা আমাকে ডেকেছিল। পরীক্ষা প্রক্রিয়া দেখার জন্য তারা একটি কমিটি গঠন করেছিল। পুরো ভর্তি পরীক্ষার প্রক্রিয়াটা আমি নিজের চোখে দেখেছি। ওনারা এত সুন্দর করে প্রশ্ন করেছেন, প্রশ্নপত্র বিতরণ করেছেন এবং যে পরীক্ষা নিয়েছেন সেটা একদম ত্রুটিমুক্ত। কাজেই আমি এখন জানি, প্রশ্নফাঁস না করে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব। প্রশ্ন যদি ফাঁস হয়, তাহলে বুঝে নিতে হবে, ফাঁস ঠেকানোর দায়িত্ব নিতে তারা রাজি নয়। ’

 


মন্তব্য