kalerkantho


বুলডোজারসহ ৪২১ কোটি টাকার যন্ত্রপাতি পাচ্ছে সিটি ও পৌরসভা

মোশতাক আহমদ   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বুলডোজারসহ ৪২১ কোটি টাকার যন্ত্রপাতি পাচ্ছে সিটি ও পৌরসভা

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, ড্রেন-রাস্তা নির্মাণসহ আনুষঙ্গিক কাজের জন্য হ্যামার, বুলডোজারসহ ৪২১ কোটি টাকার যন্ত্রপাতি পাচ্ছে সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলো। ইতিমধ্যে এগুলো দেশের ১১টি সিটি করপোরেশন ও ৩২১টি পৌরসভায় সরবরাহ শুরু হয়েছে।

এসব মেশিনারিজ পরিচালনার জন্য ইতিমধ্যে পাঁচ শতাধিক জনশক্তিকে প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, যন্ত্রপাতিগুলো আমদানি করা হয়েছে বেলারুশ থেকে। এগুলো সরবরাহ করছে আরএমএম গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান আরএমএম ইন্টিগ্রেটেড অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটি ইতিমধ্যে ওই সব মেশিনারিজ আমদানি করে ঢাকার কাছের জেলা নরসিংদীতে মজুদ করেছে। সেখানে একটি ফ্যাক্টরিতে এগুলো অ্যাসেম্বলিং শেষে পৌরসভা ও সিটি করপোরেশনের ড্রাইভারদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

আগামী জুন মাস নাগাদ এসব ভেহিকল সারা দেশে সরবরাহের কাজ শেষ হবে বলে জানিয়েছেন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের জেনারেল ম্যানেজার মেজর (অব.) ফরাজি। কালের কণ্ঠকে তিনি বলেন, এসব ভেহিকল ও যন্ত্রপাতি তৈরি করেছে বেলারুশের কম্পানি এমডেকো। প্রতিষ্ঠানটির লোকাল এজেন্ট হিসেবে আরএমএম ইন্টিগ্রেটেড অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এগুলো সরবরাহ করছে। সম্প্রতি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে সরবরাহের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

আমদানি করা যন্ত্রপাতির মোট সংখ্যা এক হাজার ৩৯৫টি। এর মধ্যে রয়েছে হুইল লোডার, লগগ্রাপেল, বুলডোজার ব্লেড, স্কিড স্ট্রিড লোডার, এক্সকাভেটর, ড্রিল, হাইড্রোলিক হ্যামার, ব্যাকহো লোডার, কম্বিনেশন এসফল্ট লোডার ও টুইন ড্রাম ভাইব্রেটরি রোলার।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল মালেক কালের কণ্ঠকে জানান, এসব যন্ত্রপাতি সরবরাহের পর সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলোতে ড্রেন ও রাস্তা নির্মাণ, মেরামত ও সংরক্ষণকাজের গুণগত মান বাড়বে। উন্নয়ন কার্যক্রম ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নতি হবে। সংশ্লিষ্ট সিটি করপোরেশন ও পৌরসভা যন্ত্রপাতিগুলো ভাড়া দিয়ে রাজস্ব আয় বাড়ানোরও সুযোগ পাবে।

যুগ্ম সচিব মেজবাহ উদ্দিন জানান, দেশের মোট ৩২১টি পৌরসভার বেশির ভাগেই নির্মাণ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সেবা দেওয়ার প্রয়োজনীয়সংখ্যক যান ও যন্ত্রপাতি নেই। ফলে সময়োপযোগী নাগরিকসেবা দেওয়া যাচ্ছে না। যেকোনো নির্মাণকাজ করতে গেলে তাদের বেসরকারি খাত থেকে বেশি টাকায় যন্ত্রপাতি ভাড়া করতে হচ্ছে। সে ক্ষেত্রেও মানসম্মত যন্ত্রপাতি না পাওয়ায় কাজের গতি ও সেবার গুণগত মান কমে যাচ্ছে।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১২ সালে বেলারুশ সফরকালে সে দেশের সরকারের সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়। ওই চুক্তির আলোকে পৌরসভা ও সিটি করপোরেশনগুলোতে জনসেবার মান বাড়াতে বেলারুশ থেকে প্রায় ৪২১ কোটি টাকার যান ও যন্ত্রপাতি আমদানির পরিকল্পনা করে সরকার। এর মধ্যে বেলারুশ সরকার ঋণ হিসেবে দিচ্ছে ৩৩১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। বাকি টাকার জোগান দিচ্ছে সরকার।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ক্রমবর্ধমান শহরায়ণের ফলে সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলোতে রাস্তা, ড্রেন ও ফুটপাতের কলেবর বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা বাড়ছে। শহর-নগরের পরিবেশ ঠিক রাখার স্বার্থে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন জরুরি হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলোকে বিভিন্ন যানবাহন ও যন্ত্রপাতি দিয়ে সহায়তা প্রদানের জন্য ‘সিটি করপোরেশন ও পৌরসভার জন্য বেলারুশ থেকে মেশিনারিজ ও যন্ত্রপাতি সংগ্রহ’ শীর্ষক প্রকল্প নেওয়া হয়।

জানতে চাইলে প্রকল্প পরিচালক আবুল বাশার জানান, নির্ধারিত ৪২৫ কোটি টাকার মধ্যে ৩৩৫ কোটি টাকা ক্রেডিট বা বাকিতে যন্ত্রপাতি দিয়েছে বেলারুশ সরকার। তিন বছর পর থেকে মাত্র ১ শতাংশ হারে এর সুদ প্রদান করতে হবে। ঋণ পরিশোধ করা হবে ১১ বছরে। তিনি জানান, আমদানি পণ্যগুলো আরএমএম ইন্টিগ্রেটেড অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজের নরসিংদীর স্টক ইয়ার্ডে রাখা আছে। চালকদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ শেষে সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলোর মাঝে বরাদ্দ অনুযায়ী পণ্যগুলো বিতরণ করা হবে।

সূত্র জানায়, চুক্তির আওতায় আমদানীকৃত যন্ত্রপাতিগুলোর ক্ষেত্রে দুই বছরের ওয়ারেন্টি দিচ্ছে বেলারুশ সরকার। এ সময়ে যন্ত্রপাতি রক্ষণাবেক্ষণসংক্রান্ত সব ব্যয় রপ্তানিকারী প্রতিষ্ঠান বহন করবে। প্রতিষ্ঠানটি ওয়ারেন্টি পিরিয়ড শেষে যন্ত্রপাতি পরিচালন ও সংরক্ষণে প্রয়োজনীয় খুচরা যন্ত্রাংশ কারখানা মূল্যে সরবরাহ করবে এবং ঢাকায় এ বিষয়ে সেবা দেওয়ার স্বার্থে তারা সার্ভিস সেন্টার স্থাপন করবে।


মন্তব্য