kalerkantho


মেয়র আনিসুল বলেন

ঢাকায় উন্মুক্ত পাবলিক প্লেস রাখা জরুরি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক বলেছেন, ভূমিকম্প বা অগ্নিকাণ্ডের মতো দুর্যোগে নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য ঢাকার প্রতিটি এলাকায় উন্মুক্ত পাবলিক প্লেস রাখা জরুরি। দুর্যোগ মোকাবিলায় সবার আগে ব্যাপক আকারে সচেতনতা সৃষ্টির ওপর গুরুত্ব আরোপ করে তিনি বলেন, ‘রাজধানী ঢাকাকে একটি নিরাপদ শহর হিসেবে দেখতে চাই।

গতকাল বৃহস্পতিবার ডিএনসিসির দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনার সক্ষমতা পরিস্থিতি নিয়ে একটি প্রতিবেদনের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে মেয়র আনিসুল এসব কথা বলেন। দুপুরে রাজধানীর বারিধারা ডিপ্লোম্যাটিক জোনের একটি হোটেলে ডিএনসিসি এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডিএনসিসির মেয়র বলেন, দুর্যোগ মোকাবিলায় স্কুল, কলেজের পাশাপাশি এলাকাবাসী সবাইকে প্রয়োজনীয় তথ্য ও জ্ঞানে সমৃদ্ধ করতে হবে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন। এ ছাড়া প্রতিটি এলাকায় উন্মুক্ত পাবলিক প্লেস রাখা জরুরি। কেননা ভূমিকম্প বা অগ্নিকাণ্ডের মতো দুর্যোগে এসব পাবলিক প্লেস নিরাপদ আশ্রয় হিসেবে ব্যবহার করা সম্ভব।

এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র বলেন, নিরাপত্তার স্বার্থে এরই মধ্যে ডিএনসিসি এলাকায় বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় ৮০০ ক্লোজড সার্কিট (সিসি) ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। সম্প্রতি একনেকে অনুমোদিত প্রকল্পের আওতায় সরকারিভাবে মহানগরীর সব এলাকায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। পাশাপাশি উন্নতমানের এলইডি সড়কবাতি সংযোজনে আগামী বছরের মার্চ মাস নাগাদ ডিএনসিসির কোনো এলাকা অন্ধকারাচ্ছন্ন থাকবে না।

জাপানের কিয়োটো বিশ্ববিদ্যালয় আরবান ডিজাস্টার রেজোন্যান্স ইনডেক্স (ইউডিআরআই) তৈরি করে। তাদের প্রতিবেদনে দেখা যায়, ডিএনসিসি এলাকার ২০১৬ সালের ইউডিআরআইয়ের গড় মান ২ দশমিক ৫২, যা ২০১০ সালে ছিল ২ দশমিক ৩৫।   ইউডিআরআইয়ে সর্বোচ্চ মান ৫, তবে এর মান ৪-এর ওপরে হলে তা উচ্চমানসম্পন্ন বলে বিবেচিত হয়। প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ্য করা হয়, অবকাঠামোগত (মান ৩ দশমিক ৩৭) এবং সামাজিক (মান ২ দশমিক ৫৩) সক্ষমতা বৃদ্ধির সামর্থ্য ডিএনসিসির রয়েছে।


মন্তব্য