kalerkantho


নিরাপত্তা সম্মেলন

প্রধানমন্ত্রী আজ জার্মানি যাচ্ছেন, মার্কেলের সঙ্গে বৈঠক শনিবার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



প্রধানমন্ত্রী আজ জার্মানি যাচ্ছেন, মার্কেলের সঙ্গে বৈঠক শনিবার

জার্মানির মিউনিখে অনুষ্ঠেয় নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগ দিতে চার দিনের সরকারি সফরে আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা ছাড়ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৭ থেকে ১৯ ফেব্রুয়ারি এ সম্মেলন চলবে।

এর মধ্যে ১৮ ফেব্রুয়ারি শনিবার জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে।

প্রধানমন্ত্রীর এ সফর উপলক্ষে গতকাল বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী বলেন, এবারই প্রথম বাংলাদেশের কোনো রাষ্ট্র বা সরকারপ্রধান এ সম্মেলনে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ পেলেন।

জার্মানির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সফরসঙ্গীরা আজ রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইতিহাদ এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে রওনা দেবেন। ফ্লাইটটি আবুধাবি হয়ে শুক্রবার ভোরে মিউনিখ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছার কথা রয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, শেখ হাসিনা-মার্কেল বৈঠকে যেসব বিষয়ে আলোচনা হবে সেগুলো হচ্ছে—উন্নয়ন সহযোগিতা, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে পারস্পরিক সহযোগিতা, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি প্রশমন, ইউরোপে চলমান শরণার্থী ও অভিবাসন সংকট, বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ ও সহিংস জঙ্গিবাদসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক বিষয়। বৈঠকের পর দুই শীর্ষ নেতার উপস্থিতিতে সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ নিরোধে নিয়মিত কূটনৈতিক আলোচনার লক্ষ্যে একটি যৌথ ঘোষণাপত্র স্বাক্ষরিত হতে পারে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বর্তমান বিশ্বের নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনায় ‘বেস্ট থিংক ট্যাংক কনফারেন্স’ হিসেবে বিবেচিত এ সম্মেলনে বিশ্বের ২০টি দেশের রাষ্ট্র বা সরকারপ্রধানরা অংশ নেবেন। এ ছাড়া ন্যাটো, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, গ্রিন পিস, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদেরও সম্মেলনে অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, ১৯৬৩ সালে মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনের যাত্রা শুরু হয়।

পাঁচ দশক ধরে এ সম্মেলনে বৈশ্বিক নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলার বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতি এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের স্বার্থের পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপত্তার প্রধান বিষয়গুলোর পাশাপাশি খাদ্য, পানি, স্বাস্থ্য, পরিবেশ, শরণার্থী এবং অভিবাসনের মতো সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সম্মেলনে আলোচনা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

রোহিঙ্গা ইস্যু প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ পর্যন্ত বাংলাদেশ এককভাবে রোহিঙ্গা ইস্যু মোকাবিলা করছে। কিন্তু এখন এটি ধীরে ধীরে আন্তর্জাতিক মনোযোগ আকর্ষণ করছে। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে গোটা পৃথিবী এখন বাংলাদেশের পাশে। এখন আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বুঝতে পেরেছে যে বাংলাদেশ রোহিঙ্গা ইস্যুর সমাধান করতে পারবে না।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনা সম্মেলনের বিভিন্ন অধিবেশনের পাশাপাশি জলবায়ুসহ বিশেষ ইভেন্টে যোগ দেবেন। সূত্র : ইউএনবি ও বাসস।


মন্তব্য