kalerkantho


প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



গত ১১ ফেব্রুয়ারি কালের কণ্ঠ ‘জাল পে অর্ডার, ১৩ কোটি টাকার দরপত্র’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এর একাংশের প্রতিবাদ জানিয়েছেন বরগুনার ডিকেপি সড়কের ঠিকাদার মো. মোস্তাফিজুর রহমান।

তিনি লিখেছেন, ‘সংবাদটির মূল বক্তব্য নিয়ে কোনো ভিন্নমত নেই। তবে আমার পে অর্ডার নিয়ে যে তথ্য দেওয়া হয়েছে, তা সঠিক নয়। এ নিয়ে আমার বক্তব্যও নেওয়া হয়নি। ’

প্রতিবেদকের বক্তব্য : মোস্তাফিজুর রহমানের দাখিল করা কাগজপত্রের সত্যায়নকারী কর্মকর্তার সিলটি ভুয়া। চার বছর আগে ওই কর্মকর্তা বরগুনা ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছেন। ওই কর্মকর্তা কালের কণ্ঠকে সত্যায়নের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। এ ছাড়া দাখিলকৃত পে অর্ডার, ব্যাংক সচ্ছলতা ও স্থিতি সনদের সত্যতা নিয়ে আপত্তি তুলে বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন আরেক ঠিকাদার। ইউএনও কাগজপত্রগুলোর সত্যতা যাচাই করার জন্য ব্যাংক কর্মকর্তার কাছে চিঠি পাঠান। ইউএনওর অফিস সূত্র জানায়, মোস্তাফিজুরের পে অর্ডার সঠিক।


মন্তব্য