kalerkantho


বগুড়ায় আনিছার হত্যা

ঘাতক নেশাখোর চার যুবক

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বগুড়ার মহাস্থানে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে আওয়ামী লীগ কর্মী আনিছার রহমান রঞ্জু (৪২) হত্যা মামলার রহস্য উন্মোচিত হয়েছে। নেশার টাকা সংগ্রহ করতে গিয়ে চার বন্ধু মিলে ছুরিকাঘাতে তাঁকে হত্যা করেছে।

নিহত আনিছার সদর উপজেলার লাহিড়ীপাড়া ইউনিয়নের রহমতবালা গ্রামের মফিজ উদ্দিন প্রামাণিকের ছেলে।

হত্যা মামলার অন্যতম আসামি ইফতেখার আলম বিশাল শনিবার বিকেলে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ২-এর বিচারক মো. কামরুজ্জামানের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। বিশাল শিবগঞ্জ উপজেলার মহাস্থান পূর্বপাড়া গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে।

আদালতে জবানবন্দিতে বিশাল জানায়, আকাশ মণ্ডল, নবিরুল ইসলাম, আবদুর রউফ রয়েল এবং সে নেশার টাকা জোগাড় করতে গিয়ে তাঁকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

শিবগঞ্জ থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কামরুজ্জামান মিয়া জানান, ২৫ অক্টোবর রাতে সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম দুলুর ভাগ্নে আনিছুর রহমান রঞ্জু বাইসাইকেলযোগে মহাস্থান বন্দর থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। মহাস্থান ব্রিজে দুর্বৃত্তরা তাঁকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে সঙ্গে থাকা আট হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে স্থানীয়রা বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

পরদিন আনিছারের স্ত্রী শিল্পী বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে শিবগঞ্জ থানায় মামলা করেন। তখন এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে।

তারা হলো উপজেলার নাগরকান্দি গ্রামের আব্দুর রউফ রয়েল, আকাশ মণ্ডল ও নবিরুল ইসলাম। এ ঘটনার কিছুদিন পর ২৬ ডিসেম্বর উপজেলার মহাস্থান বাজারে শাহীনুর রহমান নামের নাপিতকে দিনের বেলায় হত্যা করা হয়।


মন্তব্য