kalerkantho


গভীর সাগরে ৫ লাখ পিস ইয়াবাসহ ৯ জন আটক

ঢাকায় ৩ হাজার ট্যাবলেটসহ র‌্যাবের জালে দুজন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



গভীর সাগরে ৫ লাখ পিস ইয়াবাসহ ৯ জন আটক

কক্সবাজারের গভীর সমুদ্রে অভিযান চালিয়ে মাছ ধরার নৌকা থেকে পাঁচ লাখ পিস ইয়াবা জব্দ এবং পাঁচ রোহিঙ্গাসহ ৯ জনকে আটক করেছে র‌্যাব। এ ছাড়া রাজধানী ঢাকায় র‌্যাবের পৃথক অভিযানে দুই ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আটক এবং তাদের কাছ থেকে প্রায় তিন হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জানায়, গতকাল শনিবার ভোরে অভিযান চালিয়ে ইয়াবা বহনকারী মাছ ধরার ট্রলারসহ আটজনকে আটক করা হয়। পরে ট্রলার মালিককে আটক করে তার বাড়ি থেকে আরো ৫০ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। এ বিষয়ে র‌্যাব-৭-এর কক্সবাজার ক্যাম্পের কম্পানি অধিনায়ক মেজর মো. রুহুল আমিন বলেন, সাগরপথে কয়েকটি সিন্ডিকেট মাছ ধরার ট্রলারে করে টেকনাফ-চট্টগ্রাম রুটে ইয়াবা পাচার করে আসছিল। র‌্যাব দীর্ঘদিন ধরে খোঁজখবর নেওয়ার পর গোপন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালায়। সন্দেহজনক ট্রলারটি থামার সংকেত দিলে তারা পালানো চেষ্টা করে। কিন্তু র‌্যাব ধাওয়া দিয়ে আটজনকে আটক করে।

ট্রলারের মাছ রাখার জায়গা থেকে প্যাকেট করা সাড়ে চার লাখ ইয়াবা উদ্ধার করা হয় জানিয়ে র‌্যাব কর্মকর্তা রুহুল বলেন, আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের পর কক্সবাজার শহর থেকে ট্রলার মালিক সুলতান আহম্মদকে আটক করা হয়। পরে তার বাড়ি থেকে আরো ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত ব্যক্তিদের মধ্যে রোহিঙ্গারা হলো কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থীশিবিরের বাসিন্দা নূর মোহাম্মদের ছেলে মো. হাবিবুল্লাহ (৩৭), মো. আবদুল্লাহর ছেলে জাহিদ হোসেন (৩০), সৈয়দ হোসেনের ছেলে মো. আবদুল হামিদ (২০), মিয়ানমারের আকিয়াব জেলার মংডু থানার মুন্সিপাড়ার নূর বশরের ছেলে মো. জাহাঙ্গীর (১৯), আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মো. ওসমান গনি (২০)।

বাকিরা হলো ট্রলার মালিক কক্সবাজার শহরের রুমালিয়ারছড়ার আবু বক্করের ছেলে মো. সুলতান আহম্মদ (৪০), খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলার মালবাগান এলাকার শামসুল হকের ছেলে মো. মিজানুর রহমান (৪৭), ট্রলার চালক লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার সুজন গ্রামের আব্দুল মতলবের ছেলে আব্দুর রউফ (৪৫) ও রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার গয়েশপুর এলাকার আব্দুল গফুরের ছেলে মো. আব্দুর রাজ্জাক মিয়া (৫৫)।

র‌্যাব কর্মকর্তা রুহুল বলেন, ‘শরণার্থীশিবিরের বাসিন্দারা মিয়ানমারের নাগরিক। তবে তারা নিবন্ধিত নাকি অনিবন্ধিত শরণার্থী শিবিরের বাসিন্দা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ’ আটককৃতদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর থানায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান।

ঢাকায় নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, গতকাল মেজর ইশতিয়াক আহমেদের নেতৃত্বে র‌্যাব-১-এর একটি দল রাজধানীরর ওয়ারীর টিকাটুলী এলাকার একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে দুই ‘মাদক ব্যবসায়ী’কে গ্রেপ্তার করে। তারা হলো মো. হোসেন (৩৫) ও সাব্বির হোসেন সোহাগ (১৯)। তাদের কাছ থেকে দুই হাজার ৮৫০ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়।

র‌্যাবের আইন ও গনমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান জানান, টিকাটুলীর ১/৩ কেএম দাস লেনের ১৩/ক নম্বর বাসায় কিছু অসাধু মাদক ব্যবসায়ীর ইয়াবার একটি বড় চালান নিয়ে আসার খবরে অভিযান চালানো হয়। ইয়াবা উদ্ধার ছাড়াও আটককৃত ব্যক্তিদের কাছ থেকে দুই লাখ তিন হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, ইয়াবার এই চালানটি টেকনাফ থেকে সৌদিয়া পরিবহনে ঢাকায় নিয়ে আসে। এর আগে বিভিন্ন ধাপে তারা টেকনাফ থেকে বিপুল পরিমাণ ইয়াবার চালান ঢাকায় এনে বিক্রি করেছে। তিনি জানান, আটক হোসেন রাজধানীর বড় মাদক ব্যবসায়ী। মাদকসম্রাট হিসেবেও সে পরিচিত। তার অন্যতম অংশীদার মাদকসম্রাট সোহাগ (কথিত নাম) এখনো পলাতক। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


মন্তব্য