kalerkantho


নিরপেক্ষতা বজায় রাখতে পারবেন না নতুন সিইসি

মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে মির্জা ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনারের নেতৃত্বে নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ ভূমিকা পালনে সক্ষম হবে না। কারণ তাঁর দলীয় পক্ষপাতের বিষয়টি উন্মোচিত হয়ে পড়েছে।

জনগণের কাছে বিষয়টি খুবই পরিষ্কার।

গতকাল শনিবার বিকেলে বাংলা একাডেমিতে এক অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, ‘পত্রপত্রিকায় প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে নিয়ে যে ছবি ছাপা হয়েছে, অন্যান্য মিডিয়ায় যা প্রকাশ পেয়েছে তাতে এটাই প্রমাণিত হয়েছে যে আমরা যে বক্তব্য রেখেছিলাম সিইসির নাম ঘোষণার পরে, সেটাই সত্য প্রমাণিত হয়েছে। ’

গতকাল বাংলা একাডেমির সোহরাওয়ার্দী মঞ্চে অধ্যাপিকা সৈয়দা ফাতেমা সালামের ‘সুন্দরী শূন্য’, সাংবাদিক রফিক মুহাম্মদের ‘পাখির আশা পাখির বাসা’ ও সাংবাদিক মাইদুর রহমান রুবেলের ‘ভূতের রাজ্য’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন মির্জা ফখরুল।

ফাতেমা সালামের ‘সুন্দরী শূন্য’ যুক্তরাষ্ট্রের প্রবাস-জীবন নিয়ে লেখা, প্রকাশক ইছামতি প্রকাশনী সংস্থা। ‘ভূতের রাজ্য’র প্রকাশক ইতি প্রকাশন এবং ‘পাখির আশা পাখির বাসা’র প্রকাশক সপ্তডিঙ্গা। অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ফখরুল।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির বিষয়ে কানাডার আদালতের রায়ের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দুর্নীতির অভিযোগে বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতু প্রকল্পে অর্থায়ন বন্ধ করে দিয়েছিল—এটাই বাস্তবতা। আদালতের রায়ের বিষয়ে আমরা কখনো কোনো উক্তি করিনি।

আমাদের বক্তব্য ছিল, পদ্মা সেতু নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এখন কোথায় কী প্রমাণ হলো না হলো, সেটা তো আমাদের বিষয় নয়। ’

অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘এই মাসেই, ১৯৫২ সালে, আমাদের মুক্তির সূচনা হয়েছিল ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। আমাদের অস্তিত্বের যে শেকড়, এই শেকড় এই ফেব্রুয়ারি মাসেই প্রোথিত হয়েছিল। আমাদের কথা বলার স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র যখন হারিয়ে যায়, তখন আমরা ৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের কথাই স্মরণ করি। অনুপ্রাণিত হই, নতুন করে আমাদের অধিকার—লেখার অধিকার, কথা বলার অধিকার, আমাদের মৌলিক অধিকার ফিরে পাওয়ার জন্য সংগ্রামে রত হওয়ার জন্য শপথ গ্রহণ করি। ’

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন লেখিকা সৈয়দা ফাতেমা সালাম ও প্রকাশক রশীদুর রহমান। লেখিকার স্বামী ও বিএনপির উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, জাসাস সভাপতি অধ্যাপক মামুন আহমেদ, মহিলা নেত্রী ফরিদা ইয়াসমীন, বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান, অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মহানগরের নেতাদের সঙ্গে ফখরুলের বৈঠক

ঢাকা মহানগর বিএনপি নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল শনিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মহাসচিবের কক্ষে এ বৈঠক হয়। বৈঠকের কথা স্বীকার করে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আগামী দিনে মহানগর বিএনপির কর্মসূচি নির্ধারণ করতে আমরা নিয়মিত বৈঠকের অংশ হিসেবে বসেছিলাম। ’ এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা ও হয়রানির প্রতিবাদে আমরা জনসভা করার চিন্তা করছি। তবে তারিখ এখনো নির্ধারণ হয়নি। খুব শিগগির তারিখ ঠিক করে আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করব। ’

বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মহানগরের নেতা আবুল বাশার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 


মন্তব্য