kalerkantho


কাকরাইলে পুলিশ ও বিএনপিকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আদালতে হাজিরা উপলক্ষে রাস্তায় দাঁড়ানো নিয়ে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে পুলিশ ও নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় উত্তেজিত নেতাকর্মীরা কাকরাইলে বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে। বিএনপি অভিযোগ করেছে, তাদের নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশ বিনা উসকানিতে গুলি ছুড়েছে ও বেধড়ক লাঠিপেটা করেছে। তবে পুলিশ এই অভিযোগ অস্বীকার করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুর্নীতির দুই মামলায় বকশিবাজারে বিশেষ আদালতে আজ খালেদা জিয়ার হাজির হওয়ার কথা ছিল। প্রতিদিনের মতো এদিনও নেতাকর্মীরা রাস্তায় অবস্থান করছিল। মত্স্য ভবন থেকে শুরু করে বিশেষ আদালত পর্যন্ত রাস্তায় দুই পাশে ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দলসহ বিএনপি নেতাকর্মীরা অবস্থান নেয়। কিন্তু হঠাৎ পুলিশ এসে তাদের সরে যেতে বলে। এতে নেতাকর্মীরা কারণ জানতে চাইলে পুলিশ লাঠিপেটা শুরু করে। পরে উত্তেজিত নেতাকর্মী পুলিশের সঙ্গে মৃদু সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।

এ সময় বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। পরে পুলিশ লাঠিপেটা ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

জানতে চাইলে স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ বলেন, ‘ম্যাডামের না যাওয়ার খবর আমরা দেরিতে পেয়েছি। এর আগেই পুলিশ অতর্কিত লাঠিপেটা শুরু করে। সেখান থেকে ৮-১০ জন কর্মীকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়। ’

প্রসঙ্গত, অসুস্থ এবং উচ্চ আদালতে বিচারকের প্রতি অনাস্থা এনে আবেদন করেছেন জানিয়ে আদালতের কাছে সময় প্রার্থনা করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। পরে আদালত সময় আবেদন মঞ্জুর করে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী দিন ধার্য করেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল সন্ধ্যায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, পুলিশ বিনা উসকানিতে বিএনপি নেতাকর্মী ও পথচারীদের ওপর গুলি ছোড়ে ও বেধড়ক লাঠিপেটা করে।

 


মন্তব্য