kalerkantho


হবিগঞ্জে প্রধান বিচারপতি

হয়রানির উদ্দেশ্যে আটক ব্যক্তিদের ছেড়ে দেওয়া হবে

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বিচার বিভাগ স্বাধীনভাবে কাজ করছে। নিরপরাধ যারা—পুলিশ যাদের হয়রানিমূলকভাবে আটক করেছে—তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে।

কিন্তু যারা অপরাধী তাদের ছাড় দেওয়া হবে না, জামিনও দেওয়া হবে না।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার শ্রীশ্রী শচীঅঙ্গন ধামের ৩৬তম বার্ষিক উৎসবে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা।

প্রধান বিচারপতি বলেন, বিচার বিভাগ স্বাধীন ছিল, স্বাধীন থাকবে। বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র। এখানে ধর্ম-কামার-কুমার কোনো ভেদ নেই। ১৯৭১ সালে এ দেশে গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, তা থাকবে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, বাদ্যযন্ত্র ব্যবহারে যাতে অন্য ধর্মের লোকের কোনো ক্ষতি না হয় সেদিকে দৃষ্টি রাখতে হবে।

হবিগঞ্জ জেলার বিচারক ও ম্যাজিস্ট্রেটদের ভূয়সী প্রশংসা করেন প্রধান বিচারপতি। তিনি বলেন, অপরাধীদের জামিন দেওয়ার প্রবণতা কমায় হবিগঞ্জে অপরাধপ্রবণতা অনেক কমেছে।

শচীঅঙ্গন ধামে সংবর্ধনা ও শ্রী চৈতন্য পরিক্রমা গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধান বিচারপতি। অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছালে তাঁকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। পরে পুলিশের পক্ষ থেকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। শচীঅঙ্গন ধামে একটি বকুল গাছের চারা রোপণ করেন তিনি। শচীঅঙ্গন ধামের সভাপতি নিখিল চন্দ্রের সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক অভিজিৎ ভট্টাচার্যের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন এমপি মুনিম চৌধুরী বাবু, হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম, জেলা পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাই, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদির চৌধুরী এবং প্রধান বিচারপতির শিক্ষক বিজিত কুমার দেব।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার আবু সৈয়দ দিলজার হোসেন, হাইকোর্ট বিভাগের স্পেশাল অফিসার বেগম হোসনে আরা আকতার, প্রধান বিচারপতির একান্ত সচিব মোহাম্মদ আনিসুর রহমান ও হাইকোর্ট বিভাগের ডেপুটি রেজিস্ট্রার বেগম ফারজানা ইয়াসমিন।


মন্তব্য