kalerkantho


বুড়িগঙ্গা-তুরাগ দূষণ

২৫ কারখানাকে ৯০ লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বুড়িগঙ্গা নদী ও তুরাগ নদ দূষণের দায়ে ২৫টি কারখানাকে ৯০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য করেছে পরিবেশ অধিদপ্তরের এনফোর্সমেন্ট উইং। পরিবেশ দূষণবিরোধী অভিযান ও পরিবেশ সংরক্ষণ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বুধবার পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট) মো. আলমগীর ঢাকা ও এর পার্শ্ববর্তী আশুলিয়া, সাভার, কেরানীগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী ও গাজীপুরের ২৫টি কারখানাকে জরিমানা করেন।

পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর তরল বর্জ্য অপরিশোধিত অবস্থায় সরাসরি পরিবেশে নির্গমন করে পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতিসাধন, পরিবেশগত ছাড়পত্র গ্রহণ ব্যতিরেকে অবৈধ রেডিমিক্স, ওয়াশিং ও ডাইং কারখানা স্থাপন করে তুরাগ ও বুড়িগঙ্গা নদীতে নির্গত করার কারণে এই ২৫টি কারখানাকে তিনি ৯০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য ও আদায় করেন।

সূত্র মতে, দীর্ঘদিন ধরে কেরানীগঞ্জ এলাকার বিভিন্ন ডায়িং ও ওয়াশিং কারখানা ইটিপি নির্মাণ না করে কারখানা পরিচালনা করে আসছিল। তাই গত ১ ফেব্রুয়ারি অভিযান চালিয়ে ওই এলাকার ১৪টি ওয়াশিং ও ডায়িং কারখানা সিলগালাসহ বিদ্যুত্ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। পরিবেশগত ক্ষতিসাধনের জন্য ক্ষতিপূরণ ধার্যকৃত প্রতিষ্ঠানগুলোকে গতকাল বুধবার রাজধানী ঢাকার পরিবেশ অধিদপ্তরের সদর দপ্তরে তলব করে ঢাকার মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট উইং শুনানি গ্রহণ করে এই ৯০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য ও আদায় করে।

এসব কারখানার মধ্যে ঢাকার মিরপুরের রেডিমিক্স তৈরি প্রতিষ্ঠান এবিসি বিল্ডিং প্রোডাক্টস লিমিটেডকে পাঁচ লাখ, আশুলিয়ার তানভীর কনস্টাকশন লিমিটেডকে পাঁচ লাখ; সাভারের মীর আকতার হোসেন লিমিটেডকে ১২ লাখ, ন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট ইঞ্জিনিয়ারিংকে ১০ লাখ, নরসিংদীর কালীবাড়ি ডাইং অ্যান্ড ফিনিশিং মিলস লিমিটেডকে ২১ লাখ ৩৫ হাজার; রয়েল প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজকে দুই লাখ, কেরানীগঞ্জের ১৪টি ওয়াশিং ডাইং ও ইটভাটাকে ১৭ লাখ টাকা, গাজীপুরের এ এ পাওয়ার জেনারেশনকে পাঁচ লাখ ২৫ হাজার ও মেঘনা নিট কম্পোজিট লিমিটেডকে ১০ লাখ ৬৪ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য করা হয়।


মন্তব্য