kalerkantho


ছদ্মনামেও শেষ রক্ষা হলো না ‘খুনির’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



একটি হত্যা মামলার আসামি মো. ফোরকান কক্সবাজার পালিয়ে গিয়ে ছদ্মনাম নিয়েছিলেন মামুন। এভাবে দুই বছর নিজেকে লুকিয়েও রাখেন তিনি। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। অবশেষে তাঁকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে কক্সবাজার শহরের এন্ডারসন রোডে অভিযান চালিয়ে ফোরকান ওরফে মামুনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার দৌলতপুরের গেদা মিয়ার ছেলে।

ফোরকানকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে পিবিআইয়ের পরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ২০১৫ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি হাটহাজারী উপজেলার নাজিরহাট এলাকা থেকে নাজিরহাট রেলস্টেশনের সাবেক মাস্টার রামেন্দু পালিতের (৬৫) গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তাঁর জামাতা বিপ্লব খাস্তগীর একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় ফোরকানকে আসামি করা হয়।

পিবিআই কর্মকর্তা জানান, হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই ফোরকান ও তাঁর পরিবার পলাতক ছিল। আর ফোরকান পালিয়ে কক্সবাজার গিয়ে মামুন ছদ্মনাম ধারণ করে হোটেলে চাকরি নেন।

ঘটনার বিষয়ে মোস্তাফিজুর রহমান আরো বলেন, নাজিরহাট কলেজ এলাকায় ফোরকানের ‘ভাই ভাই ইলেকট্রিক অ্যান্ড হার্ডওয়্যার’ নামের একটি দোকান ছিল। ব্যবসার জন্য ফোরকান রামেন্দুর কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা ধার নেন। টাকা না দেওয়ার জন্যই পরে তাকে খুন করে ফোরকান।


মন্তব্য