kalerkantho


বম ভাষায় প্রথম পাঠ্যপুস্তকের লেখক দৌলিয়ানের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান   

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



পার্বত্য চট্টগ্রামভিত্তিক ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী বমদের মাতৃভাষার প্রথম বইয়ের লেখক এল দৌলিয়ান মারা গেছেন। রবিবার বিকেলে বান্দরবান শহরের উজানিপাড়ার নিজ বাসায় তিনি মারা যান।

তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে ও চার মেয়ে রেখে গেছেন।

১৯৫২ সালের ১৩ ডিসেম্বর ছাপার অক্ষরে প্রকাশিত হয় এল দৌলিয়ালের লেখা বম ভাষা শিক্ষার প্রাথমিক বই (প্রথম পাঠ) ‘বম বু-বুলবু’। মাত্র ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র থাকা অবস্থায় বইটি তিনি লেখা শুরু করেন। শেষ করেন পরের বছর ১৯৫১ সালে। বাঙালির ভাষা আন্দোলনে অনুপ্রাণিত হয়ে ১৯৫২ সালে তিনি বইটি প্রকাশ করেন।

গতকাল সোমবার বিকেল ৪টায় বান্দরবান জেলা সদরের অদূরে গেেসমনিপাড়া গ্রামে এল দৌলিয়ান বমকে সমাহিত করা হয়। এর আগে তাঁর মৃত্যুর সংবাদ শোনার পর রবিবার সন্ধ্যা থেকে বান্দরবান শহরের উজানিপাড়ায় তাঁর বাসায় ভিড় জমাতে থাকে নানা ধর্ম, বর্ণ ও শ্রেণি-পেশার মানুষ। গতকাল সকালে বান্দরবানের জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিক পুষ্পস্তবক দিয়ে সরকারের পক্ষে তাঁকে শ্রদ্ধা জানান। এল দৌলিয়ানের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি।

১৯৭১ সালে বম রিলিফ অর্গানাইজেশনের জেনারেল সেক্রেটারির দায়িত্ব (১৯৭১-১৯৭৫) পালনের মধ্য দিয়ে এল দৌলিয়ানের কর্মজীবনের শুরু। কয়েক বছর আগে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন ‘বাংলাদেশ প্রেসবাইটেরিয়ান চার্চ। ’ মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি বম ভাষায় বাইবেল অনুবাদকের দায়িত্বে ছিলেন। দৌলিয়ান প্রথম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রুমা উপজেলা থেকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এ দায়িত্ব পালন শেষে তিনি কমিউনিটি অ্যাডভান্সমেন্ট ফোরাম (ক্যাফ) নামের একটি এনজিও প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৩২ সালের ২ এপ্রিল রুমা উপজেলার রনিনপাড়ায় জন্ম নেন বম ভাষার এই ব্যক্তিত্ব। তাঁর বাবার নাম থেিনন বম। ২০০৫ সালে তাঁর বই বম বু-বুলবুর ১১তম সংস্করণ বের করা হয়।


মন্তব্য