kalerkantho


বেসরকারি স্বাস্থ্য খাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চায় ক্যাব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বেসরকারি স্বাস্থ্য খাতে নিয়মিতভাবে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছে কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব)। গতকাল শনিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ আহ্বান জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ক্যাব দাবি করেছে, দেশের স্বাস্থ্যসেবা খাত এখন অনেকাংশে অনিয়ন্ত্রিত। এই অনিয়ন্ত্রিত ব্যবস্থার সুযোগে এক শ্রেণির বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্রধান লক্ষ্য অতি মুনাফা অর্জন। এখানে স্বাস্থ্যসেবা উপেক্ষিত। এ জন্যই নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা প্রয়োজন।

সম্প্রতি বগুড়ার দুটি হাসপাতালে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের তথ্য উল্লেখ করে ক্যাব জানিয়েছে, একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেখেছেন শল্যচিকিৎসার কাজ করছিলেন চিকিৎসা সহকারী। আর রোগ নির্ণয়ের পরীক্ষার ফলাফলে ছিল না কোনো চিকিৎসকের স্বাক্ষর। ফলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অর্থদণ্ড ও কারদণ্ড প্রদান করা হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে সেখানকার হাসপাতাল ব্যবসায়ীরা। বগুড়া শহরের প্রায় তিন শতাধিক হাসপাতাল ও ক্লিনিক থেকে রোগী বের করে দিয়ে ধর্মঘট পালন করে তারা।

সড়ক অবরোধ করে তারা আটক দুই ব্যক্তির মুক্তি দাবি করে।

ক্লিনিক ব্যবসায়ীদের এসব আচরণের সমালোচনা করে ক্যাব জানিয়েছে, মানহীন ও তথাকথিত স্বাস্থ্যসেবার নামে হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক ব্যবসা বন্ধ করার ব্যবস্থা গ্রহণ জরুরি। সরকার এসব প্রতিষ্ঠান দ্রুত বন্ধ না করলে অনেক রোগী যেমন স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে পড়বে, তেমনি আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হবে। রোগীদের জিম্মি করে যারা ব্যবসা পরিচালনা করছে, তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় সিভিল সার্জন অফিসের কর্মকর্তা, সুধীসমাজের প্রতিনিধি ও ক্যাবের প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্ত করার অনুরোধ জানিয়েছে ক্যাব।

 


মন্তব্য