kalerkantho


আন্তর্জাতিক ছবি মেলা শুরু

নাসির আলীর ক্যামেরায় কীর্তিমান বাঙালিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



নাসির আলীর ক্যামেরায় কীর্তিমান বাঙালিরা

ঢাকায় শুরু হলো আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র উৎসব ছবি মেলা। এশিয়ার সর্ববৃহৎ এই আলোকচিত্রের আসরে অংশ নিচ্ছে ১৬টি দেশের ২৭ জন আলোকচিত্রী।

বহুমাত্রিক গল্পের সঙ্গে বিশ্বের আলোচিত নানা বিষয়কে স্পর্শ করা এসব আলোকচিত্রশিল্পীর ফ্রেমবন্দি ছবি নিয়ে সাজানো হয়েছে ৩১টি প্রদর্শনী।

বাংলাদেশের খ্যাতিমান আলোকচিত্রশিল্পী নাসির আলী মামুনের ১৯৭২ থেকে ১৯৮২ সময়কালের তোলা ছবিগুলো এবারের ছবি মেলার বিশেষ আকর্ষণ। তাঁর প্রদর্শনীর শিরোনাম ‘দ্য পোয়েট উইথ দ্য ক্যামেরা’। তাঁর তোলা ছবিতে প্রস্ফুটিত হয়েছে কীর্তিমান বাঙালিদের মুখ। আছে মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক, কবি জসীমউদ্দীন, আবুল হোসেন, নির্মলেন্দু গুণসহ এ দেশের রাজনীতি-শিল্প-সাহিত্য অঙ্গনের উজ্জ্বল মুখগুলো। নাসির আলী মামুনের তোলা এসব ঐতিহাসিক আলোকচিত্র এখন শোভা পাচ্ছে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালার ৪ নম্বর গ্যালারিতে।

নাসির আলী মামুন ছাড়াও বাংলাদেশের নাঈম মোহাইমেন, সাহরিয়া শারমিন, দেবাশীষ চক্রবর্তী ও তৌফিকুর রহমান অনীকসহ পাঁচজন আলোকচিত্রীর শিল্পের প্রদর্শনী রয়েছে ছবি মেলায়।

এ ছাড়াও ছবি মেলার আয়োজনের বিশেষ আকর্ষণ—কানু গান্ধীর ‘কানু’স গান্ধী’, পুষ্পমালা এন’র ‘নেটিভ উইমেন অব সাউথ ইন্ডিয়া : ম্যানারস অ্যান্ড কাস্টমস (২০০০-২০০৪)’, নাঈম মোহাইমেনের ‘ইউনাইটেড রেড আর্মি’, স্ট্যানলি গ্রিন-এর ‘ওপেন উন্ড’সহ দেশ-বিদেশের বিখ্যাত আলোকচিত্রীদের অসাধারণ কাজ।

এ বছরই প্রথমবারের মতো ছবি মেলা ১০ জন বাংলাদেশি শিল্পীকে ‘ফেলো’ হিসেবে নির্বাচিত করছে।

তাঁদের বিভিন্ন মাধ্যমের শিল্পকর্ম প্রদর্শন করা হচ্ছে।

ছবি মেলার মূল প্রদর্শনীস্থল শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা। এর বাইরেও মেলার অংশ হিসেবে পর্যায়ক্রমে পুরান ঢাকার বিউটি বোর্ডিং, বুলবুল ললিতকলা একাডেমি ও আহসান মঞ্জিলে হবে প্রদর্শনী।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব থেকে শিল্পকলা একাডেমি পর্যন্ত শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে ছবি মেলার নবম আসরের সূচনা হয়। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার প্রধান মিলনায়তনে ছিল মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। আলোকচিত্রে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ আলোকচিত্রশিল্পী নাসির আলী মামুন ও সাঈদা খানমকে আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন উৎসব পরিচালক ড. শহিদুল আলম। সভাপতিত্ব করেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। বিশেষ অতিথি ছিলেন যুক্তরাজ্যের অধ্যাপক লিজ ওয়েলস এবং ইরানের আলোকচিত্রী হেঙ্গামেহ গোলেস্তাঁ।

ছবি মেলা ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৮ পর্যন্ত খোলা থাকবে।

ঢাকা আন্তর্জাতিক কবিতা উৎসব অনুষ্ঠিত

দুই দিনের জাতীয় কবিতা উৎসব শেষ হতে না হতে অনুষ্ঠিত হলো আরেকটি কবিতা উৎসব। গতকাল অনুষ্ঠিত হয়েছে ঢাকা আন্তর্জাতিক পোয়েট সামিট-২০১৭। শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা গ্যালারি অডিটরিয়ামে এ উৎসব আয়োজন করে বাংলাদেশের কবিতা উদ্যোগ ‘কথক’।

কবিতা উৎসবে বিভিন্ন দেশের ছয়জন কবি প্রতিনিধিত্ব করেন। এই কবিদের মধ্যে ছিলেন রাশিয়ার কবি ভিক্টর পোগাদাইভ, অস্ট্রিয়ার কবি মেনফ্রেড কোবো, আর্জেন্টিনার কবি ইওনা বুরঘার্ট ও জার্মানির কবি টোবিয়াস বুরঘার্ট। এ ছাড়া অংশগ্রহণ করেন পুর্টো রিকোর দুজন প্রখ্যাত কবি মারিয়া দে লো এনজেলেস কামাকো রিভাস ও লুজ মারিয়া লোপেজ। অংশ নেন বাংলাদেশের ছয়জন স্বনামধন্য কবি আসাদ চৌধুরী, হায়াৎ সাইফ, মোহাম্মদ নুরুল হুদা, হাবীবুল্লাহ সিরাজী, জাহিদুল হক ও আমিনুর রহমান।

বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।


মন্তব্য