kalerkantho


মানবসেতুতে হাঁটলেন উপজেলা চেয়ারম্যান

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মানবসেতুতে হাঁটলেন উপজেলা চেয়ারম্যান

দুই পাশে সামনাসামনি দাঁড়িয়ে হাতে হাত ধরে একদল ছাত্র। তাদের হাতের ওপর শুয়ে আরেক ছাত্র।

অনেকটা সেতুর আকার দিতে চেয়েছে তারা। এর ওপর দিয়ে হেঁটে গেলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান।

চাঁদপুরের হাইমচরে নীলকমল ওসমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এমনই এক অভিনব আয়োজন হয়েছিল গত ৩০ জানুয়ারি। আর সেই মানবসেতুর ওপর দিয়ে হেঁটে সমালোচনার মুখে পড়লেন হাইমচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারী। মানবসৃষ্ট সেই সেতু পার হচ্ছেন তিনি—এমন একটা ছবি ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। অনেকে নিন্দা জানিয়েছে এমন ঘটনার।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত সোমবার ছিল নীলকমল ওসমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। সেখানে খেলাধুলার বেশ কিছু ইভেন্টের শেষে ছিল নবম ও দশম শ্রেণির ছাত্রদের তৈরি প্রতীকী সেতু বানানো।

এই বিদ্যালয়ের রেওয়াজ হচ্ছে, বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠানে নানা আদলে সেতু নির্মাণ করা। এদিনও ঠিক একইভাবে সেতু তৈরি করে তারা। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানকে উদ্দেশ্য করেই মূলত এ আয়োজন। চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারী একপর্যায়ে পার হলেন সেই মানবসেতু। তিনি ‘সেতু’র পাটাতন হিসেবে ব্যবহার করা এক ছাত্রের পিঠের ওপর দিয়ে হাঁটলেন। ‘সেতু’ থেকে নামলেন উবু হয়ে থাকা আরেক ছাত্রের পিঠে পা রেখে। তিনি খুশি হলেন। শিক্ষার্থীদেরে আবদার রক্ষায় তিনি তাদের হাতে তুলে দিলেন গুনে গুনে পাঁচ হাজার টাকা।

এমন ঘটনার এক দিন পর সেতু পারাপারের ছবি নিয়ে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে তা ভিন্ন মাত্রা ছড়ায়। এ নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।

এ সম্পর্কে নীলকমল ওসমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোশাররফ হোসেন বলেন, খেলাধুলার অংশ হিসেবে দীর্ঘ বছর ধরে ছাত্ররা এমন আয়োজন করে আসছে। এরই অংশ হিসেবে এ বছর এমন সেতু তৈরি করে তারা। সে ক্ষেত্রে অতিথিদের কাছ থেকে সালামি নিয়ে সেতু পারাপারে বাধ্য করে। প্রধান শিক্ষক আরো বলেন, ‘এই ইভেন্টটি যদি নেতিবাচক হয় তাহলে আগামী বছর থেকে বাদ দেওয়া হবে। ’ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হুমায়ুন পাটোয়ারী বলেন, ‘জোর করে নয়, ছাত্রদের ইচ্ছায় চেয়ারম্যান সাহেব তাদের তৈরি সেতু পার হয়েছেন। তবে এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে একটি মহল নোংরামি শুরু করেছে। এটা অনভিপ্রেত। ’ ঘটনা সম্পর্কে হাইমচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারী বলেন, ‘ছাত্রদের ইচ্ছার কারণে তাদের ডাকে সাড়া দিয়েছি। উপস্থিত সবাই এটি আনন্দচিত্তে গ্রহণ করেছে। তা ছাড়া এই বিদ্যালয়ে এমন আয়োজন নতুন কিছু নয়। তবে এমনটি ভুল মনে হলে ছাত্রদের কথায় কান দিতাম না। এটা ঠিক আমার ইচ্ছাতে হয়নি। ’

মানবসেতুতে অংশ নেওয়া দশম শ্রেণির ছাত্র রাশেদ বলে, ‘প্রতিবছরই আমাদের বিদ্যালয়ে এমন ব্যতিক্রমধর্মী ইভেন্ট হয়। ’

এ ঘটনার তদন্তে প্রশাসনের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার সৈয়দা সরোয়ার জাহানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার তিনি চট্টগ্রাম থেকে হাইমচর যাবেন।


মন্তব্য