kalerkantho


ধর্ষণ, ভ্রূণ নষ্টের চেষ্টা

একজনের যাবজ্জীবন ২১ বছর পর্যন্ত শিশুর ভার সরকারের

বরিশাল অফিস   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বরিশালে ধর্ষণ এবং পরে ভ্রূণ নষ্টের চেষ্টার অপরাধে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

ভুক্তভোগী ওই নারীর গর্ভে জন্ম নেওয়া কন্যাসন্তানের বয়স ২১ বছর হওয়া পর্যন্ত তার যাবতীয় ব্যয়ভার সরকারকে বহনের আদেশ দেওয়া হয়েছে। শিশুটির বয়স এখন প্রায় পাঁচ বছর।

গতকাল বুধবার বরিশালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক শেখ আবু তাহের এ আদেশ দেন।

দণ্ডিত আসামি বজলুর রহমান বরিশালের ইছাগুড়া এলাকার এছাহাক আলীর ছেলে। আসামির অনুপস্থিতিতেই রায় দিয়েছেন আদালত।

আদালতের বেঞ্চ সহকারী আজিবর রহমান জানান, মামলার বাদীর সঙ্গে প্রতিবেশী বজলুর রহমান হাওলাদারের প্রেমের সম্পর্ক হয়। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাদীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে বজলু তাঁকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। এতে তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। এর থেকে বাদী বজলুকে বিয়ের করার জন্য চাপ দেন।

একপর্যায়ে বিয়ের কেনাকাটার কথা বলে বজলু বাদীকে বরিশাল নগরের একটি হাসপাতালে নিয়ে ভ্রূণ নষ্টের চেষ্টা করে। বিষয়টি বাদী বুঝতে পেরে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে আসেন। ২০১১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি তিনি কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন ওই বছরের ৩ এপ্রিল বজলুর রহমানকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। সাতজনের সাক্ষ্য নেওয়ার পর বিচারক গতকাল রায় দেন।


মন্তব্য