kalerkantho


ভারত থেকে দরপত্রের মাধ্যমে বিদ্যুৎ কিনবে বাংলাদেশ

কর্মশালায় প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, আঞ্চলিক সহযোগিতা দ্রুত উন্নয়নের অন্যতম নিয়ামক। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশ গভীর সম্পর্ক বজায় রেখে বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা করে যাচ্ছে।

ভারত যে ক্রস বর্ডার বিদ্যুৎ বাণিজ্য নীতিমালা করতে যাচ্ছে সেখানে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ভারতের যেকোনো কম্পানি থেকে বিদ্যুৎ কিনতে পারবে। ভুটান বা নেপাল থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানির বিষয়টিও অনেক দূর এগিয়েছে। তুর্কমেনিস্তান-পাকিস্তান-আফগানিস্তান-ভারত (টাপি) বা চীন-মিয়ানমার-ভারত (সিএমআই) গ্যাস নেটওয়ার্কে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ সময়ের ব্যাপার মাত্র।

গতকাল শুক্রবার ঢাকায় র‌্যাডিসন হোটেলে ‘পাওয়ার অ্যান্ড এনার্জি ইন সাউথ এশিয়া : কানেক্টিভিটি থ্রো কো-অপারেশন’ শীর্ষক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনস্টিটিউট ফর পলিসি, অ্যাডভোকেসি অ্যান্ড গভর্ন্যান্স এবং এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক ইনস্টিটিউট যৌথভাবে দুই দিনব্যাপী এই কর্মশালার আয়োজন করেছে। এতে সার্কভুক্ত আটটি দেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতসংশ্লিষ্ট ৩০ জন সরকারি কর্মকর্তা অংশ নিচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, আঞ্চলিক সহযোগিতা জোরদার করা গেলে ভোক্তারা সাশ্রয়ী মূল্যে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পাবে। এ ধরনের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে আঞ্চলিক সহযোগিতা থেকে বড় দেশগুলোর তুলনায় ছোট দেশগুলো বেশি উপকৃত হয়।

কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক ইনস্টিটিউটের ডিন নায়োকি ইয়োশিনো। অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ওপর আইপেগ প্রকাশিত একটি বইয়ের মোড়কও উন্মোচন করা হয়। আইপেগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক সৈয়দ মুনীর খসরুর সভাপতিত্বে কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে ইউনাইটেড গ্রুপের বিদ্যুৎ বিভাগের চেয়ারম্যান জেনারেল মো. আবদুল মুবীন বক্তব্য দেন।


মন্তব্য