kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির ১৯ জন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির ১৯ জন গ্রেপ্তার

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অজ্ঞান পার্টি হিসেবে পরিচিত প্রতারকচক্রের ১৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। তাদের কাছ থেকে ঘুমের ওষুধ মেশানো হালুয়া ও চেতনানাশক ট্যাবলেট জব্দ করা হয়েছ।

গতকাল বৃহস্পতিবার ডিএমপির জনসংযোগ দপ্তরে আয়োজিত ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান যুগ্ম কমিশনার আব্দুল বাতেন।

ব্রিফিংয়ে আব্দুল বাতেন বলেন, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে,  রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার বাস ও সিএনজি অটোরিকশা স্ট্যান্ড, রেলস্টেশনে কিংবা লঞ্চঘাটে অবস্থানরত যাত্রীদের টার্গেট করে কৌশলে তাদের ফাঁদে ফেলত তারা। প্রথমে যাত্রীদের সঙ্গে ভাব জমাত। আস্থা অর্জনের পর একপর্যায়ে তাদের জুস (ফলের রস), শরবত ও হালুয়ার সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে খাইয়ে দিত। সংশ্লিষ্ট যাত্রীরা জ্ঞান হারালে তাদের সঙ্গে থাকা মালপত্র লুটে নিয়ে পালিয়ে যেত তারা। সাধারণত যাত্রীর বেশ ধরে কিংবা চা-পানসহ বিভিন্ন পণ্যের হকার সেজে এ ধরনের প্রতারণা করত তারা।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলো সাকিল সিদ্দিক (২৬), মিলন পাটোয়ারী (২২), ইমরান আলী (১৯), মানিক রহমান সাজু (৩০), এনামুল হক এনাম (২৮), জামাল (৩৫), সাঈদ (২৪), রানা (২০), আবু হোসেন (২৬), আরিফ হোসেন (২৩), মনা (২২), আলমাজ শেখ (২৭), মিলন ওরফে পেটকাটা মিলন (২৬), রানা (২১), আলমগীর (২২), সজীব (২৯), রুবেল (২৪), সুজন (২৪) ও জয়নাল (২৮)। সায়েদাবাদ ও গাবতলী বাসস্ট্যান্ড, বংশাল, ভাটারা, কমলাপুর বিআরটিসি বাসস্ট্যান্ডসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

ব্রিফিংয়ে বলা হয়, ১৯ জনের মধ্যে কয়েকজনকে এর আগেও গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। জামিনে বের হয়ে ফের একই ধরনের অপরাধে জড়িয়েছে তারা। সাধারণ মানুষ অসচেতনতার কারণে এসব প্রতারকের খপ্পরে পড়ছে। চেতনানাশক ওষুধের প্রতিক্রিয়ায় এর আগে অনেকের মৃত্যুও হয়েছে। অনেকে দীর্ঘমেয়াদি শারীরিক সমস্যায় ভুগছে।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, প্রতিদিনই কেউ না কেউ অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে এ হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। এমনকি পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় অনেকে দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসা নিচ্ছে।  

গোয়েন্দা পুলিশের তথ্যমতে, অজ্ঞান পার্টি নিয়ন্ত্রণে থানা পুলিশের পাশাপাশি ডিবির আলাদা টিম কাজ করছে।


মন্তব্য