kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


হাসপাতালের সড়কে দেয়াল দিল ছাত্রলীগ!

বরিশাল অফিস   

২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



হাসপাতালের সড়কে দেয়াল দিল ছাত্রলীগ!

বরিশাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনের একটি সড়কে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা দেয়াল তুলে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে। ছবি : কালের কণ্ঠ

বরিশালে শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনের একটি সড়কে প্রাচীর তুলে মানুষের চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গত বুধবার গভীর রাতে এ কাজ করেছে বলে জানিয়েছে ওই কলেজের কয়েকজন সাধারণ শিক্ষার্থী।

ওই প্রাচীর তোলার কারণে গতকাল বৃহস্পতিবার হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আসা রোগী ছাড়াও বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কার্যালয় ও পানি উন্নয়ন বোর্ড কার্যালয়ে লোকজনকে যেতে হয়েছে প্রায় এক কিলোমিটার পথ ঘুরে। শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা দাবি করে, বখাটেদের উৎপাত থেকে কলেজের ছাত্রীদের রক্ষা করতেই তারা এ ব্যবস্থা নিয়েছে।

গতকাল সকালে ওই এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রীনিবাসের সামনের সড়কে ইট দিয়ে প্রায় তিন ফুট উঁচু দেয়াল তোলা হয়েছে। মাঝ বরাবর দেয়াল নির্মাণ করায় ওই সড়ক থেকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আসা রোগী ও জনসাধারণের চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

জরুরি বিভাগে রোগী আনা-নেওয়ার জন্য প্রায় এক কিলোমিটার পথ ঘুরে যেতে হচ্ছে। হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন জরুরি বিভাগের রোগী আনা-নেওয়া ছাড়াও মেডিক্যাল কলেজের ছাত্রীনিবাসের শিক্ষার্থী, বিএসসি নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থী, স্টাফ কোয়ার্টারের বাসিন্দা এবং মেডিক্যাল কলেজের আবাসিক শিক্ষার্থীরা আসা-যাওয়া করত। এ ছাড়া হাসপাতালের সামনে অবস্থিত মেট্রোপলিটন পুলিশ কার্যালয় ও পানি উন্নয়ন বোর্ড কার্যালয়েও আসা-যাওয়া করতেন কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সাধারণ মানুষ।

শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রলীগের কর্মী ফোরকান হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাতে তাঁদের এক সহপাঠী ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে কয়েকজন বখাটে। তাঁরা ওই বখাটেদের মধ্যে ইলু নামের একজনকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেন। কিন্তু ওই ঘটনায় ছাত্রীরা তাঁদের ওপর দোষ চাপালে তাঁরা বাধ্য হয়ে কলেজের ছাত্রী হোস্টেলের সড়কের মুখে হাসপাতালের বিদ্যুৎ অফিসের সামনে দেয়াল তুলে দেন, যাতে ছাত্রীদের কেউ উত্ত্যক্ত না করতে পারে।

কলেজের কয়েকজন সাধারণ শিক্ষার্থী জানায়, এ রাস্তায় দেয়াল তুলে দেওয়ায় অপরাধ আরো বাড়বে। কারণ এ রাস্তা দিয়ে টহল দিতেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। রাস্তাটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তাঁদের নজরদারির বাইরে চলে যাবে।

শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. ভাস্কর সাহা বলেন, ‘কয়েক দিন আগে ছাত্রলীগের কর্মীরা সড়কটি বন্ধ করার বিষয় নিয়ে আমার কাছে এসেছিল। ওই সময় তাদের বলা হয়েছিল, একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় সিদ্ধান্ত নিয়ে জানানো হবে। কিন্তু তারা কাউকে কিছু না জানিয়ে রাতের আঁধারে এ কাজটি করেছে। ’

হাসপাতালের পরিচালক এস এম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘জনগুরুত্বপূর্ণ একটি সড়কের মাঝ বরাবর দেয়াল নির্মাণ করে শুধু রোগী ও জনসাধারণের ভোগান্তি সৃষ্টি করা হয়নি, পুরো হাসপাতাল এলাকাকে নিরাপত্তাহীনতায় ফেলে দেওয়া হয়েছে। কারণ মেডিক্যাল কলেজের আশপাশ এলাকায় রয়েছে স্টাফ কোয়ার্টার, ছাত্রাবাস, ছাত্রীনিবাসসহ কলেজ ও হাসপাতালের আওতাধীন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। এই সড়ক দিয়েই দিনে-রাতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা টহল দিতেন। দেয়ালটি অপসারণের জন্য অধ্যক্ষকে চিটি দেওয়া হবে। ’


মন্তব্য