kalerkantho

শুক্রবার । ২ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা শিগগির

শফিক সাফি   

২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা শিগগির

যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটি শিগগির ঘোষণা করা হবে। সহযোগী এই দুই সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব চূড়ান্ত করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

বিএনপির বেশ কয়েকজন নেতা জানান, চেয়ারপারসন সংগঠনগুলোর কেন্দ্রীয় কমিটি চূড়ান্ত করেছেন। সাংগঠনিক দক্ষতা, আন্দোলনের ভূমিকা ও অতীত কর্মকাণ্ড আমলে নিয়ে নেতৃত্ব চূড়ান্ত করা হয়েছে। তরুণ নেতাদের প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

যুবদলের সাবেক সভাপতি ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, যোগ্যরাই নেতৃত্বে আসছে। চেয়ারপারসন যখন বলবেন তখনই কমিটি ঘোষণা করা হবে।

সূত্র জানায়, নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন নিয়ে যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে একাধিক বৈঠক করেছেন খালেদা জিয়া। বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম নীরবকে সভাপতি ও ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সুলতান সালাহ উদ্দিন টুকুকে সাধারণ সম্পাদক করে যুবদলের কমিটি চূড়ান্ত করেছেন তিনি। তবে নীরবের প্রতিপক্ষের কয়েকজন নেতার কারণে ঘোষণা আটকে যায়।

কয়েকজন নেতা জানান, গত রবিবার রাতে আলাল ও নীরবকে ডেকে নিয়ে যুবদলের কমিটির বিষয়ে কথা বলেন বিএনপি চেয়ারপারসন। শীর্ষ পাঁচ পদ (সুপার ফাইভ) চূড়ান্ত করা হয়। মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির বেশ কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় নেতা আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন।

একটি সূত্রের দাবি, প্রতিপক্ষের নেতাদের প্রভাবের কারণে সাইফুল আলম নীরব বাদ পড়ে যেতে পারেন। সে ক্ষেত্রে সুলতান সালাউদ্দিন টুকু সভাপতি ও এস এম জাহাঙ্গীর বা রফিকুল আলম মজনু সাধারণ সম্পাদক হতে পারেন।

চেয়ারপারসনের চূড়ান্ত করা সুপার ফাইভ কমিটিতে মাহাবুবুল হাসান পিংকু সিনিয়র সহসভাপতি, এস এম জাহাঙ্গীর প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও রফিকুল আলম মজনু সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটি একসঙ্গেই ঘোষণা করার কথা রয়েছে। কোনো কারণে তা সম্ভব না হলে আগে যুবদলের কমিটি ঘোষণা করা হবে।

স্বেচ্ছাসেবক দলেরও সুপার ফাইভ কমিটি ঘোষণা করা হতে পারে। কয়েক দিন আগে সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল বারী বাবুকে গুলশান কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে কথা বলেন বেগম জিয়া। তিনি তাঁকে বলেন, খুব শিগগির কমিটি ঘোষণা করা হবে। পরে যেন কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা না হয়।

জানা গেছে, শফিউল বারী বাবু স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হচ্ছেন। সাধারণ সম্পাদক হচ্ছেন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আবদুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল। সাংগঠনিক সম্পাদক হচ্ছেন ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাবেক সভাপতি সাইফুল ইসলাম ফিরোজ। প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হচ্ছেন ইয়াসিন আলী।

 

সংগঠন দুটির বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির যেসব নেতা বাদ পড়বেন তাঁদের কেন্দ্রীয় বিএনপির উপকমিটি বা মহানগর কমিটিতে জায়গা করে দেওয়া হবে।

এদিকে যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ পাওয়ার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ধরনা দিচ্ছেন নেতারা।

পুনর্গঠনের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, এরই মধ্যে মহিলা দলের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এবার যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে সভাপতি ও সাইফুল আলম নীরবকে সাধারণ সম্পাদক করে (পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট) যুবদলের সর্বশেষ কেন্দ্রীয় কমিটি করা হয়েছিল ২০১০ সালের মার্চে। আর হাবিব-উন-নবী খান সোহেলকে সভাপতি ও মীর শরাফত আলী সপুকে সাধারণ সম্পাদক করে ২০০৯ সালের অক্টোবরে স্বেচ্ছাসেবক দলের সর্বশেষ কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন করা হয়েছিল। সহযোগী সংগঠনগুলোর কমিটির মেয়াদ দুই বছর। তবে স্বেচ্ছাসেবক দলের গঠনতন্ত্র না থাকায় কমিটির মেয়াদ নির্দিষ্ট নয়।


মন্তব্য