kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আওয়ামী লীগের সম্মেলন

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান উৎসবের সাজে

মোশতাক আহমদ ও তৈমুর ফারুক তুষার   

২০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সেজেছে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। দৃষ্টিনন্দন তোরণ, বিশাল আকৃতির নৌকাসদৃশ মঞ্চ, অর্ধলক্ষাধিক অতিথি ধারণক্ষম প্যান্ডেল, চারদিকে লাইটিংয়ের সমাহারে রীতিমতো উৎসবের আমেজ।

শনিবার থেকে শুরু হওয়া এ সম্মেলনের শেষ প্রস্তুতিতে রাতদিন উদ্যানে ব্যতিব্যস্ত নেতাকর্মীরা। আয়োজনের ঘাটতি যেন না থাকে সে জন্য নিয়মিত কাজ তদারক করছেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

গতকাল বুধবার দুপুরে সম্মেলনস্থল পরিদর্শন করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা। সৈয়দ আশরাফ উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘অতীতের মতো এবারেও একটি উৎসবমুখর পরিবেশে সম্মেলন হবে। আওয়ামী লীগ যখন যে সিদ্ধান্ত নেয় তা বাস্তবে পরিণত করে। দেশ পরিচালনায় আমাদের যে অঙ্গীকার তা এই সম্মেলনের মধ্য দিয়ে বাস্তবায়ন হবে। সম্মেলনের মাধ্যমে আগামী দিনের জন্য আওয়ামী লীগে শক্তিশালী ও দক্ষ নেতৃত্ব আসছে। ’

সরেজমিনে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘুরে দেখা যায়, সম্মেলন উপলক্ষে নৌকা আকৃতির বিশাল একটি মঞ্চ তৈরি করা হয়েছে। উদ্যানে বিশাল আকৃতির প্যান্ডেল নির্মাণ করা হয়েছে অর্ধলক্ষাধিক মানুষের বসার জন্য। প্রবেশপথগুলোতে নির্মাণ করা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন তোরণ। বিভিন্ন নান্দনিক আয়োজনে শেষ মূহূর্তে চলছে পরীক্ষা-নিরীক্ষা। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির অস্থায়ী কার্যালয় গড়ে তোলা হয়েছে। সেখানে পালাক্রমে দায়িত্ব পালন করছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা।

জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে গঠিত মঞ্চ ও সাজসজ্জা উপকমিটির আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর কবির নানক উদ্যান ঘুরে তদারক করছিলেন কাজ। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এই সম্মেলন শুধু আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে নয় সারা দেশের জনগণের মাঝে একটি নতুন উদ্দীপনার সৃষ্টি করেছে। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ সম্মেলনস্থল দেখতে আসছে। এই সম্মেলন হবে জনগণের সঙ্গে আওয়ামী লীগের মিশে যাওয়ার সম্মেলন। সম্মেলন যাতে উৎসবমুখর হয় সে জন্য সারা দেশে আলোকসজ্জা করা হচ্ছে। উদ্যানে প্রবেশের জন্য পাঁচটি গেট রাখা হয়েছে। এর মধ্যে শিশু পার্কের পাশে ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের পাশের গেট দিয়ে প্রধানমন্ত্রীসহ ভিআইপিরা প্রবেশ করবেন। অন্য গেট দিয়ে কাউন্সিলর ও ডেলিগেটরা প্রবেশ করবেন।


মন্তব্য