kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শহীদ মিনারে অজয় রায়কে শ্রদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



দেশের প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক অসাম্প্রদায়িক আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব, প্রবীণ রাজনীতিক অজয় রায়কে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে শ্রদ্ধা জানিয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি, পেশাজীবী-সামাজিক-সাংস্কৃতিক নেতাসহ সর্বস্তরের মানুষ। গতকাল বুধবার সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন ও রাষ্ট্রীয় সম্মান জানানোর পর সন্ধ্যায় কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার নন্দিগ্রামে তাঁকে সমাহিত করা হয়েছে।

গত সোমবার ভোরে ধানমণ্ডির নিজ বাসভবনে ৮৮ বছর বয়সে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন অজয় রায়। গতকাল সকাল ১০টায় তাঁর মরদেহ বারডেম হাসপাতালের হিমঘর থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নেওয়া হয়। সেখানে প্রথমে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তাঁকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। পরে একে একে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানায়।

অজয় রায়ের প্রতিষ্ঠিত সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন, সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদবিরোধী মঞ্চের নেতাকর্মী ছাড়াও ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল, সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, সাম্যবাদী দলের দীলিপ বড়ুয়া, অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য, সিপিবি নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিয়াউদ্দিন তারেক আলী ও সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদসহ বিভিন্ন পর্যায়ের মানুষ প্রয়াত এই নেতার কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘অন্য দল করলেও তাঁর প্রতি আমার শ্রদ্ধা অনেক গভীর। বাঙালির মুক্তির সংগ্রামে সব আন্দোলনে অজয় রায় সক্রিয় ভূমিকা রেখেছেন। রাজনৈতিকভাবে তাঁর কাছে আমি অনেক কিছু শিখেছি। ’ স্মৃতিচারণা করে তিনি বলেন, ‘ঊনসত্তরে ময়মনসিংহ জেলা কারাগারে বন্দি অবস্থায় জেলখানার চারতলায় দাঁড়িয়ে বাংলার মুক্তির সংগ্রামের কথা বলেছিলেন অজয় রায়। আমরা কয়েক শ নেতাকর্মী তাঁর সেই বক্তব্য শুনে উদ্বুদ্ধ হয়েছি।


মন্তব্য