kalerkantho


ব্লগার নাজিমউদ্দিন হত্যাকাণ্ডে এবিটির সদস্য গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ব্লগার নাজিমউদ্দিন হত্যাকাণ্ডে এবিটির সদস্য গ্রেপ্তার

গ্রেপ্তার রশিদুন নবী ভূঁইয়া

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট নাজিমউদ্দিন সামাদ হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে রশিদুন নবী ভূঁইয়া নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে তিন দিনের রিমান্ডে (জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজত) নিয়েছে পুলিশ। পুলিশের দাবি, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রশিদুন নবী জানিয়েছে, নাজিমউদ্দিনকে হত্যায় অংশ নিয়েছিল জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম (এবিটি) বা আনসার আল ইসলামের পাঁচ সদস্য।

তাদের সবার কাছে চাপাতি ছিল। একজনের কাছে একটি আগ্নেয়াস্ত্রও ছিল। নবীসহ দুজন নাজিমউদ্দিনকে কোপায়।

গতকাল সোমবার দুপুরে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম এক সংবাদ সম্মেলনে এমন দাবি করেন। ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত ওই সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেন, গত রবিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে রশিদুন নবীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

স্বজনরা জানায়, রশিদুনের বাড়ি কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে। বাবার নাম আব্দুল বারী ভুঁইয়া। তিনি কুমিল্লার নাঙ্গলকোট পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি। আব্দুল বারী ভুঁইয়া দাবি করেন, তাঁর ছেলে ধর্মভীরু ছিল। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ত।

রশিদুনের চাচা ছাদেক হোসেন ভুঁইয়া নাঙ্গলকোট উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও নাঙ্গলকোট হাসান মেমোরিয়াল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, গত ১৯ মে রাতের বেলায় নাঙ্গলকোট পৌরসভার বেতাগাঁও এলাকার বাড়ি থেকে রশিদুনকে তুলে নেওয়া হয়। নাজিমউদ্দিন হত্যাকাণ্ডের সময় রশিদুন বাড়িতে ছিল। এ ব্যাপারে নাঙ্গলকোট থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গেলে পুলিশ তা নেয়নি।

এদিকে সিটিটিসি ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, রশিদুন নবী প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, নাজিমকে হত্যা করার তিন মাস আগে নবীর নেতৃত্বে এবিটির সামরিক শাখার সদস্যদের নিয়ে আনসার আল ইসলাম একটি আলাদা টিম গঠন করে। ওই টিমের দায়িত্ব পেয়ে নবী নাজিমউদ্দিনকে হত্যার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে তার আরো চার সহযোগীকে সঙ্গে নেয়। তারা ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় অস্ত্রের প্রশিক্ষণ নেয়। ওই সময় নাজিমউদ্দিন পুরান ঢাকার একটি মেসে থাকত। তারা ওই মেস, বাসা ও বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে নাজিমের গতিবিধি অনুসরণ করতে থাকে।

মনিরুল জানান, রশিদুন নবী নাজিম হত্যাকাণ্ড ছাড়াও সমকামী অধিকার কর্মী জুলহাজ মান্নান হত্যা ও মাহবুব তনয় হত্যা এবং প্রকাশক আহমেদুর রশিদ টুটুল হত্যাচেষ্টায় জড়িত ছিল বলেও প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরো জানান, রশিদুন নবী একাধিক নামে পরিচিত। নামগুলোর মধ্যে আছে টিপু, রাসেল, রফিক ও রায়হান। তার বাড়ি কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে। বাবার নাম আবদুল বারী ভূঁইয়া।

নাজিমউদ্দিন হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার রশিদুন নবী ভূঁইয়াকে তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিটিটিসি ইউনিটের পরিদর্শক তাজুল ইসলাম গতকাল আসামিকে আদালতে হাজির করে ১০ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। ঢাকার মহানগর হাকিম মারুফ হোসেন আসামির তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ৬ এপ্রিল রাতে পুরান ঢাকার সূত্রাপুরের ঋষিকেশ লেন (একরামপুর) মোড়ে মাথায় কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাজিমউদ্দিন সামাদকে।


মন্তব্য