kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ঋণ দেখিয়ে টাকা আত্মসাৎ মামলা

রাজশাহীতে অগ্রণী ব্যাংকের সাবেক কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



রাজশাহীতে ভুয়া প্রতিষ্ঠানের নামে ঋণ দেখিয়ে এক কোটি ১৩ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে অগ্রণী ব্যাংকের একজন সাবেক শাখা ব্যবস্থাপককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল রবিবার বিকেলে নগরীর ভেড়িপাড়া থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

গ্রেপ্তারকৃত এই সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তার নাম রফিকুল ইসলাম। তাঁর বাড়ি রাজশাহীর বাঘা উপজেলার সরেরহাট গ্রামে। তিনি অগ্রণী ব্যাংকের বাজুবাঘা শাখার ব্যবস্থাপক ছিলেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের রাজশাহী সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক শেখ ফাইয়াজ আলম জানান, রফিকুল ইসলাম অগ্রণী ব্যাংকের বাঘা উপজেলার বাজুবাঘা শাখায় কর্মরত অবস্থায় ১৫-২০টি প্রতিষ্ঠানকে এক কোটি ১৩ লাখ টাকা ঋণ দেন। তারপর তিনি অবসরে চলে যান। এই ঋণের টাকা আদায় না হওয়ায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ নিরীক্ষক দল পাঠায়। ওই নিরীক্ষক দল সরেজমিন তদন্ত করে ঋণগ্রহণকারী কোনো প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্ব খুঁজে পায়নি।

এরপর গত ২০ জুলাই ব্যাংকের বাজুবাঘা শাখার ব্যবস্থাপক ইসহাক আলী বাদী হয়ে বাঘা থানায় রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে চারটি মামলা করেন। থানা থেকে মামলাগুলো দুর্নীতি দমন কমিশনে পাঠানো হয়।

এই চারটি মামলার একটির তদন্ত কর্মকর্তা হলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক আলমগীর হোসেন। তাঁর তদন্তাধীন মামলায় ভুয়া ঋণ দিয়ে অগ্রণী ব্যাংকের সাড়ে ১৮ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রফিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জানতে চাইলে দুর্নীতি দমন কমিশন কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন বলেন, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে রফিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়। বিচারক তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। পরে অন্য তিনটি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হবে বলে জানান কমিশনের এই কর্মকর্তা।


মন্তব্য