kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জেলা যুবলীগের সম্মেলন

১৫০ গাড়ি, ৫০০ মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে বগুড়ায় গেলেন যুবলীগ চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



১৯ বছর পর অনুষ্ঠিত হলো বগুড়া জেলা যুবলীগের সম্মেলন। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থী থাকায় এবং নেতাকর্মীদের শোডাউনের কারণে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে রায়ট কার ও জলকামানসহ কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করেছিল পুলিশ।

শেষ পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবেই শেষ হয় সম্মেলন। তবে সব কিছু ছাপিয়ে দেড় শতাধিক গাড়ি ও ৫০০ মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে সম্মেলনে যুবলীগের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যানের যোগ দেওয়ার ঘটনাটি চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। সম্মেলন শেষে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন শুভাশিষ পোদ্দার লিটন ও সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন আমিনুল ইসলাম ডাবলু।

গতকাল শনিবার বগুড়া জিলা স্কুল মাঠে বগুড়া জেলা যুবলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বের আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান মো. ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি। সম্মেলন উপলক্ষে রীতিমতো যুবরাজের বেশে বগুড়ায় আসেন তিনি। ঢাকা থেকে শতাধিক গাড়ির বহর নিয়ে যুবলীগ চেয়ারম্যান বগুড়ার সীমানা শেরপুরের চান্দাইকোনায় পৌঁছলে বগুড়াসহ উত্তরাঞ্চলের নেতাকর্মীদের আরো অর্ধশতাধিক গাড়ি ও পাঁচ শতাধিক মোটরসাইকেলের বহর তাঁকে বরণ করে। এরপর এই বিশাল গাড়িবহর বগুড়া শহরে প্রবেশ করে।

দীর্ঘ ১৯ বছর পর জেলা যুবলীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীদের মধ্যে ছিল ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা। পাশাপাশি শঙ্কাও ছিল অনেক। কারণ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থী ছিলেন। তাঁদের সমর্থকদের শোডাউনে শহরের লোকজন ছিল আতঙ্কিত। সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন এলাকা ছাড়াও ১২টি উপজেলা থেকে যুবলীগের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে আসে। সম্মেলনস্থল জিলা স্কুল মাঠে প্রবেশের আগে শহরে ব্যাপক শোডাউন করে তারা। ব্যানার আর ফেস্টুনে সাজানো হয় জিলা স্কুলের আশপাশে। হাজার হাজার নেতাকর্মীর আগমনের কারণে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রশাসনের ছিল ব্যাপক প্রস্তুতি।

সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি বলেন, জিয়াউর রহমানের নির্বাচন ছিল হ্যাঁ-না ভোটের মাধ্যমে। এরশাদ মিডিয়া ক্যুয়ের মাধ্যমে ফলাফল ঘোষণার নির্বাচন উপহার দিয়েছেন। খালেদা জিয়ার নির্বাচন ছিল সোয়া কোটি ভুয়া ভোটার দিয়ে নির্বাচন। কিন্তু শেখ হাসিনা জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করেছেন। তিনি ভাতের অধিকারও নিশ্চিত করেছেন।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশীদ বলেন, যুবলীগ হচ্ছে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ড ও আওয়ামী লীগের প্রাণশক্তি।

বগুড়া জেলা যুবলীগের বিদায়ী সভাপতি মঞ্জুরুল আলম মোহনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক সাগর কুমার তাঁর রিপোর্ট পেশ করেন।

অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান ও হাবিবুর রহমান, বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মমতাজ উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান মজনু, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আহমেদ নাসিম পাভেল, দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমানসহ অন্য নেতারা।


মন্তব্য