kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ নেতা হত্যা

তদন্ত প্রতিবেদন তিমিরে

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মোমবাতি প্রজ্জ্বালন নিয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী খালিদ সাইফুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের আড়াই মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো অন্ধকারে রয়েছে তদন্ত প্রতিবেদন। সাইফুল্লাহ কাজী নজরুল ইসলাম হল ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন।

তদন্ত প্রতিবেদন জমা না দেওয়ায় দোষীদের শাস্তির আওতায় আনতে পারছে না প্রশাসন ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ফলে আবারও সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, শোকাবহ আগস্টের প্রথম প্রহরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মোমবাতি প্রজ্জ্বালন নিয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় কাজী নজরুল ইসলাম হল শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও মার্কেটিং বিভাগের সপ্তম ব্যাচের শিক্ষার্থী খালিদ সাইফুল্লাহ গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। এ ছাড়া সংঘর্ষে আহত হন উভয় পক্ষের ১৫ নেতাকর্মী। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ১০ বছরে রাজনৈতিক আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এটাই ছিল প্রথম হত্যাকাণ্ড।

পরে এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জরুরি সিন্ডিকেট ডেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা এবং অধ্যাপক কুণ্ডু গোপীদাসকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। ওই কমিটিকে সময়সীমা না দিয়ে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়। অথচ হত্যাকাণ্ডের আড়াই মাস পেরিয়ে গেলেও তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়নি। এতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

তদন্ত প্রতিবেদন এ সপ্তাহের মধ্যে প্রকাশ করা হবে জানিয়ে কমিটির প্রধান অধ্যাপক কুণ্ডু গোপীদাস বলেন, ‘ঘটনার বিষয়ে অনেক শিক্ষার্থীর সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে। তদন্তের কাজ প্রায় শেষ। কমিটির অন্য সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করে এ সপ্তাহের মধ্যেই প্রতিবেদনটি উপাচার্য স্যারের হাতে তুলে দেব। ’


মন্তব্য