kalerkantho

বৃহস্পতিবার। ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ । ১১ ফাল্গুন ১৪২৩। ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যশোরে ইয়াবার শিকার তরুণ শিক্ষার্থী ও নারী

ফখরে আলম, যশোর   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



মাদক কারবারিরা নানা কৌশলে যশোরে ছড়িয়ে দিচ্ছে ভয়াবহ মাদক ইয়াবা। ইয়াবা সেবনে সুন্দরী হওয়া যায়, স্মৃতিশক্তি বাড়ে, লেখাপড়া মনে রাখা সহজ হয়—এ রকম নানা প্রচারণা চালাচ্ছে তারা। টার্গেট তাদের স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী ও নারী। প্রশাসন নানা উপায়ে মাদক প্রতিরোধের চেষ্টা করলেও সফলতা মিলছে কম।

যশোরের পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বিভিন্ন সভা সমাবেশে গিয়ে অভিভাবকদের সতর্ক করছি। সন্তানদের প্রতি খেয়াল রাখার কথা বলছি। মাদকের ব্যাপারে আমরা জিরো টলারেন্স নীতিতে রয়েছি। প্রতিদিনই অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী আটক ও ইয়াবা জব্দ করা হচ্ছে। ’

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের যশোর অঞ্চলের উপপরিচালক নাজমুল কবীর বলেন, ‘ইয়াবা সেবনে চেহারার বিকৃতি ঘটে। প্রাথমিক পর্যায়ে মস্তিষ্কের সব সেল সজাগ হলেও একপর্যায়ে সেলগুলো নষ্ট হয়ে যায়। ইয়াবা সেবনকারী শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ে। ইয়াবা প্রতিরোধ করতে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে সমাবেশ করা হচ্ছে। অভিভাবকদের সঙ্গেও আলোচনা করা হচ্ছে। ’

যশোর শহরের বেজপাড়া ও চাঁচড়া এলাকার কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তাদের বেশির ভাগ ক্রেতাই শিক্ষার্থী। বিশেষ করে ধনী পরিবারের সন্তানদের টার্গেট করা হচ্ছে। ইয়াবার জালে আটকে গেলে তাদের মাধ্যমেই ক্রেতা বাড়তে থাকে। আর শহরের বেশ কিছু এলাকায় মহিলা সেলসম্যান আছে, তারা নারীদের শারীরিক সৌন্দর্য বৃদ্ধির কথা বলে ইয়াবার দিকে টানছে। যশোরের দুটি পতিতালয়ে ইয়াবার ব্যবসা জমজমাট বলে জানান তারা। এসব স্থান থেকে একাধিকবার ইয়াবা জব্দ করা হয়েছে। ইয়াবার আগ্রাসনে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন অভিভাবকরা। সূত্র জানায়, গত এক সপ্তাহেই যশোরে ২০টি অভিযানে পুলিশ ও র‍্যাব এক হাজার ৭৪৫ পিস ইয়াবা বড়ি জব্দ করেছে।


মন্তব্য