kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আজ স্মৃতিসৌধে যাবেন চিনপিং

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে ২২টি স্পিড ব্রেকার অপসারণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার   

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং ঢাকা সফরে এসেছেন গতকাল শুক্রবার সকালে। আজ শনিবার সকালে তিনি সড়কপথে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করতে যাবেন।

সে জন্য ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আমিনবাজার থেকে জাতীয় স্মৃতিসৌধ পর্যন্ত মহাসড়কের ২২টি গতিরোধক (স্পিড ব্রেকার) অপসারণ করা হয়েছে।

সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মো. শামসুজ্জোহা বলেন, চীনের প্রেসিডেন্টের জাতীয় স্মৃতিসৌধে আগমন উপলক্ষে মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে থাকা ২২টি গতিরোধক তুলে সমান করে দেওয়া হয়েছে। জনস্বার্থে যেসব স্থানে গতিরোধক প্রয়োজন শুধু সেসব জায়গায় পরবর্তী সময়ে ফের গতিরোধক নির্মাণ করে দেওয়া হবে। তবে সেগুলো হবে নির্দেশনা পাওয়ার পর।

ঢাকা জেলা ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) ফরহাদ হায়দার বলেন, মহাসড়কে কোনো গতিরোধক থাকবে না—এটাই নিয়ম। কিন্তু সড়কে দুর্ঘটনা কমাতে জনগণের দাবির মুখে বিভিন্ন স্থানে গতিরোধক নির্মাণের প্রয়োজন হয়, যদিও চীনের প্রেসিডেন্টের আগমন উপলক্ষে সেগুলো তুলে ফেলা হয়েছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ স্থান যেমন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ও সিঅ্যান্ডবি বাসস্ট্যান্ডে গতিরোধক খুবই প্রয়োজন।

গণপূর্ত অধিদপ্তরের উপসহকারী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বলেন, চীনের প্রেসিডেন্ট শনিবার (আজ) সকাল ৯টায় জাতীয় স্মৃতিসৌধে প্রবেশ করবেন। সেখানে তিনি শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। এরপর তিনি জাতীয় স্মৃতিসৌধ চত্বরে ‘উদয় পদ্ম’ গাছের একটি চারা রোপণ করবেন এবং পরিদর্শন বইতে সই শেষে জাতীয় স্মৃতিসৌধ এলাকা ত্যাগ করবেন।

সাভার সার্কেলের এএসপি নাজমুল হক জানান, স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স, সেনাবাহিনী, র‌্যাব ও পুলিশ ছাড়াও চীনা দূতাবাসের নিরাপত্তা কর্মকর্তারাও ইতিমধ্যে স্মৃতিসৌধ পরিদর্শন করেছেন। নিরাপত্তার সব খুঁটিনাটি তাঁরা দেখে গেছেন। তাঁদের পরামর্শ অনুযায়ী ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের গতিরোধকগুলো অপসারণ করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরের পর থেকে পুলিশের দেড় হাজার সদস্য ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে মোতায়েন করা হয়েছে। শুক্রবার রাত থেকে মহাসড়কে টহল দিতে শুরু করেন ব্যাটালিয়ন পুলিশের সদস্যরা। হেলিকপ্টারের চক্কর আর কমান্ডো পাহারায় সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে যাবেন চীনের প্রেসিডেন্ট। ঢাকা থেকে সফরসঙ্গীদের নিয়ে সড়কপথে তিনি পৌঁছবেন জাতীয় স্মৃতিসৌধে।

স্মৃতিসৌধে পৌঁছার এক কিলোমিটার আগে গাড়িবহরের সামনে যোগ হবে সেনাবাহিনীর একটি নান্দনিক মোটর শোভাযাত্রা। সেখান থেকে ধীরগতিতে গাড়িবহর গিয়ে পৌঁছবে স্মৃতিসৌধ চত্বরে। এরপর সফরসঙ্গীদের নিয়ে শহীদ বেদিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করবেন শি চিনপিং। তিনি সেখানে এক মিনিট নীরবতা পালন করবেন। এ সময় ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা টেলিভিশন দিয়েও নিরাপত্তার খুঁটিনাটি পর্যবেক্ষণ করবে ঢাকা জেলা পুলিশ।


মন্তব্য