kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রাগীব আলীর মেয়ে ও জামাতার বাড়িতে কিছুই পায়নি পুলিশ

সিলেট অফিস   

১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সিলেটের বহুল আলোচিত শিল্পপতি রাগীব আলীর মেয়ে ও জামাতার বাড়ি থেকে কোনো মালামাল জব্দ করতে পারেনি পুলিশ। জব্দ করার মতো কোনো মালামাল পাওয়া যায়নি উল্লেখ করে গতকাল বৃহস্পতিবার আদালতে প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশ।

তারাপুর চা বাগানের জমি আত্মসাৎ-সংক্রান্ত প্রতারণা মামলায় গত ২০ সেপ্টেম্বর পলাতক দুই আসামি রাগীব আলীর মেয়ে রোজিনা কাদির ও জামাতা আবদুল কাদিরের মালামাল জব্দ (ক্রোক) করার নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, গতকাল মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করা তারিখে দুই আসামির মালামাল জব্দ তালিকা আদালতে উপস্থাপন করতে সিলেটের বিশ্বনাথ থানার পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। পুলিশের পক্ষ থেকে আদালতকে জানানো হয়, মালামাল ক্রোকের নির্দেশনা পেয়ে পুলিশ তিন দফা বাড়ির ঠিকানা অনুযায়ী অভিযান চালিয়েছে। তিনবারই ঠিকানা অনুযায়ী বাড়িতে গিয়ে কিছু ক্রিকেট খেলার সামগ্রী ছাড়া আর কিছু পাওয়া যায়নি। আশপাশের লোকজন জানিয়েছে, এটি তাঁদের বাড়ির ঠিকানা হলেও তাঁরা নিয়মিত শহরে থাকেন। এখানে কখনো থাকেননি। বিশ্বনাথ থানার ওসি মনিরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মহানগর বিচারিক হাকিম আদালতের এপিপি মাহফুজুর রহমান বলেন, যেকোনো মামলায় আসামিদের স্থায়ী ঠিকানা ব্যবহার করা হয়। মামলায় যে ঠিকানা দেওয়া হয়েছে, সেটি ঠিক আছে। এটি রাগীব আলীর স্থায়ী ঠিকানা। আসামিরা হয়তো আগেই মালামাল সরিয়ে নিয়েছে।

আদালতসংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, জালিয়াতির মাধ্যমে তারাপুর চা বাগান বন্দোবস্ত নেওয়ায় ছেলে, মেয়ে, জামাতাসহ রাগীব আলীর বিরুদ্ধে ২০০৫ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর সরকারের হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা হয়। গত ১৯ জানুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের রায়ের নির্দেশনায় মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করলে গত ১০ আগস্ট ছেলেকে নিয়ে রাগীব আলী ভারতে পালিয়ে যান।


মন্তব্য