kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মেঘনায় ট্রলারডুবি ৪ জনের লাশ উদ্ধার

পৃথক ঘটনায় আরো দুজন নিখোঁজ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



নরসিংদীর রায়পুরায় মেঘনা নদীতে ট্রলারডুবির ঘটনার দুই দিন পর চারজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে চরমধুয়া ইউনিয়নের চংপাড়া এলাকা থেকে তাঁদের লাশ উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা।

পরে পরিবারের কাছে লাশগুলো হস্তান্তর করা হয়। নিহতরা হলেন উপজেলার আব্দুল্লাহপুর গ্রামের আবদুল হক, ফরিদ মিয়া, বাহেরচর গ্রামের আনোয়ার ফরাজী ও মেহেরনগর গ্রামের খলিল মিয়া। তাঁরা সবাই গরু ব্যবসায়ী ছিলেন।

গত মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে শ্রীনগর ইউনিয়নের বেলোয়ারচর আনন্দবাজারের কাছে মেঘনা নদীতে ঝড়ের কবলে পড়ে গরুবাহী একটি ট্রলার ডুবে যায়। এ ঘটনায় চার গরু ব্যবসায়ী নিখোঁজ ছিলেন। একই সঙ্গে ১৫টি গরু মারা যায়। ট্রলারটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর থেকে রায়পুরার চরসুবুদ্ধি গ্রামে আসছিল।

এদিকে নীলফামারী ডিমলায় তিস্তা নদীতে পৃথক নৌকাডুবির ঘটনার তিন দিন পার হলেও নিখোঁজ কৃষক মকবুল হোসেনের (২৮) সন্ধান পাওয়া যায়নি। এরই মধ্যে উদ্ধার তত্পরতা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। অন্যদিকে জামালপুর দেওয়ানগঞ্জে যমুনা নদীতে নৌকা ডুবে সোনা মিয়া (৩৫) নামের একজন নিখোঁজ রয়েছেন। বিস্তারিত আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

নরসিংদী ফায়ার সার্ভিসের উপমহাব্যবস্থাপক কাজী নাজমুজ্জামান বলেন, দুর্ঘটনার পর থেকে স্থানীয়দের সঙ্গে ঢাকা থেকে আসা ছয় সদস্যের একটি ডুবরিদল উদ্ধার অভিযান শুরু করে। স্রোতের কারণে ঘটনাস্থল থেকে লাশগুলো দূরে চলে যাওয়ায় খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। বৃহস্পতিবার সকালে মেঘনা নদীর চরমধুয়া চংপাড়া এলাকায় লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি ও স্বজনরা লাশগুলো উদ্ধার করে। পরে উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত করে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া ট্রলারের যাত্রী মোমেন ফরাজী বলেন, ‘নৌকাটির নিচে গরু ও ছাউনিতে মানুষ কানায় কানায় ভরা ছিল। ঝড়ের সময় বড় একটি ঢেউ নৌকাটিকে ধাক্কা দিলে সামনের অংশ ঢুবে যায়। আমি প্রথমে সাঁতারে ও পরে একটি কাঠের দরজা ধরে কোনোমতে বেঁচেছি। ’

দুর্ঘটনার পর থেকে স্বজনরা নদীর তীরে অপেক্ষা করতে থাকে। গতকাল লাশ তুলে আনার পর স্বজনদের আহাজারিতে নদীর তীরে হৃদয়বিদারক পরিবেশ সৃষ্টি হয়। ছেলের লাশ দেখে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন নিহত আনোয়ার ফরাজীর বাবা আব্দুল হক ফরাজী। তিনি বলেন, ‘আনোয়ার আমারে ছেলেহারা করছে আর আমার নাতি-নাতনিরে করছে বাবাহারা। ’ এ কথা বলে তিনি বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন।

রায়পুরা উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রেহান উদ্দিন, রায়পুরা উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল মতিন উদ্ধার অভিযানে নেতৃত্ব দেন।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রেহান উদ্দিন বলেন, ‘ঘটনার তদন্তে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যদের অনুদান হিসেবে প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা ও ২০ কেজি করে চাল এবং উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। ’

নীলফামারীতে নিখোঁজের খোঁজ মেলেনি : নীলফামারীর ডিমলা উপজেলায় তিস্তা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনার তিন দিনেও কৃষক মকবুল হোসেনের সন্ধান পাওয়া যায়নি। গত বুধবার বিকেলে রংপুর ফায়ার সার্ভিসের চার সদস্যের ডুবুরিদল উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করে ফিরে গেছে রংপুরে। গতকাল পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়রা নদীর বিভিন্ন স্থানে সন্ধান চালালেও তাঁকে উদ্ধারে ব্যর্থ হয়।

গত মঙ্গলবার বিকেলে নিখোঁজ হন কৃষক মকবুল হোসেন। তিনি ওই উপজেলার পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নের কালীগঞ্জ গ্রামের আজাহার আলীর ছেলে।

জামালপুরে এখনো একজন নিখোঁজ : শারদীয় দুর্গোৎসবের প্রতিমা বিসর্জন দেখতে গিয়ে দেওয়ানগঞ্জে যমুনা নদীতে নৌকা ডুবে একজন নিখোঁজ রয়েছেন। গত মঙ্গলবার সন্ধায় চুকাইবাড়ীর হলকারচর এলাকায় প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হচ্ছিল। এ সময় শতাধিক নারী-পুরুষ নৌকায় উঠে তা দেখছিল। একপর্যায়ে নৌকাটি ডুবে যায়। এ সময় কিছু লোক সাঁতরে তীরে উঠলেও সোনা মিয়া (৩৫) নামের একজন ডুবে যান। তিনি রামপুরা গ্রামের লুত্ফর রহমানের ছেলে।


মন্তব্য