kalerkantho

শুক্রবার । ২ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সন্ত্রাসী মোশার গ্রেপ্তার দাবিতে রূপগঞ্জে প্রতিবাদ বিক্ষোভ

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সন্ত্রাসী মোশার গ্রেপ্তার দাবিতে রূপগঞ্জে প্রতিবাদ বিক্ষোভ

রূপগঞ্জের কায়েতপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ রফিকুল ইসলাম রফিককে গুলি করে হত্যাচেষ্টার প্রতিবাদে এবং শীর্ষ সন্ত্রাসী মোশারফ হোসেন মোশাসহ মোশা বাহিনীর সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার দাবিতে গতকাল মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে স্থানীয়রা। ছবি : কালের কণ্ঠ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সন্ত্রাসী মোশারফ বাহিনীর প্রধান মোশা ও তার সহযোগীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা হয়েছে। উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ রফিকুল ইসলাম রফিককে গুলি করে হত্যাচেষ্টার প্রতিবাদে এই কর্মসূচি পালন করেছে স্থানীয় কয়েক হাজার মানুষ।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে এই মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয় কায়েতপাড়া ইউনিয়নের নাওড়া এলাকায়। মানববন্ধন-পরবর্তী প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন রংধনু গ্রুপের পরিচালক মিজানুর রহমান খান, কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হাজি ইয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি আব্দুল বাতেন, ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান বজলুর রহমান, মোয়াজ্জেম হোসেন, আব্দুল মতিন, আব্দুল হাই, আলতাফ মেম্বার প্রমুখ।

এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন আরজু মিয়া, ওসমান গনি বাবুল, মকবুল ভেণ্ডার, রাজু হাসান আলেক, নবী হোসেন, মোসলেম মিয়া, নজরুল ইসলাম, শওকত আলী, ইয়াসমিন আক্তার, রত্না আক্তার, বকুল মিয়া, মাসুম মিয়া, আবুল হোসেন, বজলুর রহমান, সাদেক হোসেন প্রমুখ।

প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, হত্যাসহ ১৮টি মামলার আসামি মোশারফ হোসেন মোশা ও তার বাহিনীর সন্ত্রাসীদের চাঁদাবাজির প্রতিবাদ করায় ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রফিককে গুলি করে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়। মোশাসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় কায়েতপাড়াবাসী কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলবে। মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল নাওড়াসহ আশপাশের এলাকা প্রদক্ষিণ করে।

প্রসঙ্গত, শীর্ষ সন্ত্রাসী মোশা নাওড়া পূর্বপাড়া পূজামণ্ডপে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এর প্রতিবাদ করায় গত সোমবার পূজামণ্ডপে হামলা চালিয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ রফিকুল ইসলাম রফিককে গুলি করে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়। এ সময় মোশা বাহিনীর হামলায় অন্তত ১০ জন আহত হয়। সন্ত্রাসীদের তাণ্ডবে পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।


মন্তব্য