kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পবিত্র আশুরা পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ পরিবেশে বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে পবিত্র আশুরা। মুসলিম বিশ্ব কারবালার শোকাবহ ঘটনাকে ত্যাগ ও শোকের প্রতীক হিসেবে পালন করে থাকে।

ঢাকায় ঐতিহ্যবাহী তাজিয়া মিছিল বের করে শিয়া সম্প্রদায়। পবিত্র আশুরা উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

৬১ হিজরির পবিত্র এই দিনে ইরাকের ফোরাত নদীর তীরে কারবালার প্রান্তরে ঘটে শোকাবহ ঘটনা। মহানবী (সা.)-এর দৌহিত্র ইমাম হোসেন পরিবারের সদস্য ও সহযোগীদের নিয়ে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার জন্য ইয়াজিদ বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়ে শহীদ হয়েছিলেন। তাই মুসলিম উম্মাহর কাছে দিবসটি ছিল বিশেষ তাত্পর্যপূর্ণ।

গত বুধবার আশুরা উপলক্ষে পত্রিকাগুলো বন্ধ ছিল। তাই গতকাল বৃহস্পতিবার কোনো পত্রিকা প্রকাশিত হয়নি। তবে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা কোরআনখানি, ওয়াজ-মাহফিল ও জিকির-আজকারসহ ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালন করেন। দিবসটি উপলক্ষে সংবাদপত্রগুলো বিশেষ নিবন্ধ প্রকাশ করে। বাংলাদেশ টেলিভিশন, বেতারসহ বেসরকারি বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে পবিত্র আশুরার তাত্পর্য তুলে ধরে বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হয়।

আশুরা উপলক্ষে পুরান ঢাকার হোসেনী দালান রোড থেকে তাজিয়া মিছিল বের হয়। মিছিলটি আজিমপুর, নিউ মার্কেট, ধানমণ্ডি ২ নম্বর সড়ক ধরে জিগাতলায় গিয়ে শেষ হয়। হোসেনী দালান রোডের ইমামবাড়া থেকে আরেকটি মিছিল বের হয়ে পুরান ঢাকার বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে। এ ছাড়া রাজধানীর মোহাম্মদপুর, মিরপুরেও তাজিয়া মিছিল হয়। ঢাকা ও আশপাশের লোকজন এসব মিছিলে অংশ নেয়।


মন্তব্য