kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


চীনা প্রেসিডেন্টের সফরকে স্বাগত বিএনপির

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



চীনা প্রেসিডেন্টের সফরকে স্বাগত বিএনপির

চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিংয়ের সফর উপলক্ষে রাজধানীর প্রধান প্রধান সড়ক পতাকা ও ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছে। ছবিটি গতকাল কারওয়ান বাজারের সার্ক ফোয়ারা থেকে তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিংয়ের ঢাকা সফরকে স্বাগত জানিয়েছে বিএনপি। একই সঙ্গে এই সফরে দেশের পক্ষে ভালো কিছুর প্রত্যাশা ব্যক্ত করা হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনের একটি রেস্তোরাঁয় সাংবাদিকদের সম্মানে আয়োজিত শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে বিজয়ার শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে দলের পক্ষে এই প্রত্যাশার কথা জানিয়েছেন সংগঠনের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘একটি বিষয় বুঝতে হবে, আমরা দেশের স্বার্থ যতটা না বুঝি, বিশ্বের আর সব দেশ তাদের স্বার্থটা বেশি বোঝে। সুতরাং পারস্পরিক স্বার্থ সমন্বয় করে সবার স্বার্থ রক্ষা পায়, এমন চুক্তি আমরা সব দেশের সঙ্গে চাই। চীনের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক ভালো ছিল, এখনো আছে, ভবিষ্যতেও থাকবে। ’

চীনা প্রেসিডেন্টের সফরে বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নে কয়েকটি চুক্তি হবে—এ বিষয়ে দলের অবস্থান জানতে চাইলে গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘কী চুক্তি হবে, তা মিডিয়াও অবগত নয়। আপনারা জানলে আমরাও জানতাম। চীনা প্রেসিডেন্ট কী দিতে আসছেন, কী চাইতে আসছেন বা কী আমার দেশ চাচ্ছে—এটা আমরা জানি। সাধারণ যেসব চুক্তি হয় তা নিয়ে গণতান্ত্রিক সরকারের সংসদে আলোচনা হয়। যদিও এই সংসদ নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। আমরা পুরোপুরি অন্ধকারে আছি। আমরা প্রত্যাশা করব, ভালো কিছু হবে। আর সরকার বৈদেশিক চুক্তির বিষয়ে বিএনপিকে কিছু জানায় না। ’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘চীনের প্রেসিডেন্টের সফরকে স্বাগত জানাই। তবে আমাদের ভাবতে হবে, কোন বিষয়গুলো আমাদের জন্য উপযোগী। অর্থাৎ অন্যের লাভের জন্য আমার ঘাড়ে যেন কোনো চাপ না পড়ে। আমরা যেন জাতিগতভাবে লাভবান হই। ’

বর্তমান সরকারের আমলে ফ্লাইওভারসহ সড়ক অবকাঠামোর নানা মেগাপ্রকল্পের ব্যয়ভার বহুগুণ বৃদ্ধির মাধ্যমে ক্ষমতাসীনরা দুর্নীতি করছে বলেও অভিযোগ করেন গয়েশ্বর রায়। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সরকার নিপীড়নমূলক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখলে বিএনপিও অলস বসে থাকবে না। বিএনপিকে বেঁচে থাকার জন্যই মারার প্রস্তুতি নিতে হবে। ’

অনুষ্ঠানে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য