kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রী

যেকোনো দুর্যোগ সাহসের সঙ্গে মোকাবিলা করুন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



যেকোনো দুর্যোগ সাহসের সঙ্গে মোকাবিলা করুন

জনগণকে যেকোনো দুর্যোগ সাহসের সঙ্গে মোকাবিলার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘যেকোনো দুর্যোগ এলে সেই দুর্যোগকে আমাদের সাহসের সঙ্গে মোকাবিলা করতে হবে এবং দুর্যোগ থেকে মানুষকে বাঁচাতে হবে।

সেদিকে লক্ষ রেখেই আমরা বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি। ’

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস উপলক্ষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি অনুষ্ঠানস্থল থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন স্থানে নবনির্মিত ১৫৩টি আশ্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘দুর্যোগ মোকাবিলায় আমাদের গৃহীত পদক্ষেপগুলো বিশ্বব্যাপী যথেষ্ট প্রশংসিত হয়েছে। আমাদের দুর্যোগ মোকাবিলার পদক্ষেপগুলো আন্তর্জাতিক পর্যায়েও গ্রহণ করা হচ্ছে। ’ তিনি বলেন, ঝড়ঝাপটা আসবেই এবং সেটা মোকাবিলা করার মতো সক্ষমতা আল্লাহর রহমতে এখন বাংলাদেশের মানুষের রয়েছে।

ঝড়ের ক্ষতি কমাতে সবুজ বেষ্টনীর ওপর জোর দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের বাঁচার একটাই পথ। ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাস থেকে রক্ষা পাওয়ার একটাই পথ, সেটা হচ্ছে বাংলাদেশকে সবুজ বেষ্টনী দিয়ে ঘিরে ফেলা। ’ তাতে ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের ধাক্কা খানিকটা কমে আসবে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘কিছু পদক্ষেপ নিজেদেরও নিতে হবে। ’

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী রামপাল বিদ্যুৎকন্দ্রবিরোধী আন্দোলন এবং সুন্দরবনের সুরক্ষায় সরকারের পরিকল্পনা নিয়েও কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘এই যে রামপাল বিদ্যুৎকন্দ্র, যে বিদ্যুৎকন্দ্র নিয়ে এত কথা, সেখানে পাঁচ লাখ গাছ লাগানোর পরিকল্পনা রয়েছে। সবুজ বেষ্টনী সৃষ্টি করার জন্য এবং কার্বন সিংকের জন্য। ’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ সম্ভু। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শাহ কামাল অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. রিয়াজ আহমেদ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন। আলোচনা পর্ব শেষে হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

খালেদার বিরুদ্ধে কোনো মামলাই মিথ্যা নয় : বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সরকার কোনো মিথ্যা মামলা করেনি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিদেশিদের কাছে অভিযোগ না জানিয়ে আদালতে গিয়ে মামলার মোকাবিলা করতে খালেদা জিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। আদালতে হাজির হতে খালেদা জিয়ার বারবার সময় নেওয়া তাঁর অপরাধের প্রমাণ বলেও উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এ মহিলা কোর্টে গিয়ে মামলা মোকাবিলাই করতে সাহস পায় না। তার একটাই কারণ, এতিমের টাকা তিনি চুরি করেছেন। ’

বুধবার সকালে গণভবনে জাতীয় শ্রমিক লীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।  

শেখ হাসিনা ২০০৭ সালে সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলে তাঁর বিরুদ্ধে করা ‘মিথ্যা মামলা’ আদালতে গিয়ে মোকাবিলার কথা তুলে ধরে বলেন, ‘তখন ওরাই ঘাবড়ে গেল। ’

২০১৪ ও ২০১৫ সালে বিএনপি-জামায়াতের নির্বাচন ঠেকানো এবং সরকার পতনের আন্দোলনে পেট্রলবোমায় হতাহতের ঘটনার বিচারের কথা আবার বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘এই যে আগুনে মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে। তাদের লোকেরা বলে মিথ্যা মামলা। কোনটা মিথ্যা মামলা? তারা কি মানুষ পোড়ায় নাই? তারা যে হুকুম দিয়ে দিয়ে মানুষ পোড়াল, সেটা কিভাবে তারা অস্বীকার করবে? তারা মানুষ পুড়িয়ে মারবে আর তাদের বিরুদ্ধে মামলা হবে না, কত আহ্লাদের ব্যাপার! আমি সেটাই চিন্তা করি। সব জায়গায় নালিশ করে বেড়ায় মিথ্যা মামলা। কোনটা মিথ্যা মামলা?’

যুদ্ধাপরাধীদের যারা মন্ত্রী বানিয়েছে তাদের বিচারের কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘যারা এদেরকে এভাবে মন্ত্রী করেছে, তাহলে তাদের বিচার কেন হবে না? তাদের বিচারও অবশ্যই হবে। তাদেরও বিচার হতে হবে। ’

অনুষ্ঠানে শ্রমিক লীগের সভাপতি শুকুর মাহমুদ, আওয়ামী লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, শ্রমিক লীগের সহসভাপতি ও নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খানও বক্তব্য দেন। সূত্র : বাসস।


মন্তব্য