kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দ্বিপক্ষীয় ইস্যুতে নিবিড়ভাবে কাজ করবে ঢাকা-দিল্লি

খুলতে পারে আমিরাতের শ্রমবাজার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



যোগাযোগ, নিরাপত্তা, সন্ত্রাস প্রতিরোধ ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতা এবং অভিবাসীকল্যাণসহ দ্বিপক্ষীয় বিষয়ে আরো নিবিড়ভাবে কাজ করবে ঢাকা ও নয়াদিল্লি। ভারতের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জেনারেল (অব.) বিজয় কুমার সিং বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে এ কথা বলেছেন।

গতকাল সোমবার ব্যাংককে শুরু হওয়া দ্বিপক্ষীয় এসিডি সামিটের ফাঁকে দুই পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী দ্বিপক্ষীয় বিভিন্ন বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। দুই দিনব্যাপী এ সম্মেলন শেষ হচ্ছে আজ মঙ্গলবার। দ্বিপক্ষীয় বিষয় ছাড়াও তাঁরা সড়ক ও রেল যোগাযোগ প্রকল্পে আঞ্চলিক সহযোগিতার চার দেশীয় ফোরাম বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, নেপাল (বিবিআইএন) এবং বাংলাদেশ, চীন, ভারত, মিয়ানমার (বিসিআইএম)-এর সম্পর্কযুক্ত বিষয় নিয়েও আলোচনা করেন।

শাহরিয়ার আলম বলেন, ‘আমাদের দুই দেশের মানুষের পারস্পরিক স্বার্থে বাংলাদেশ আঞ্চলিক যোগাযোগ ও জ্বালানি নিরাপত্তা এজেন্ডায় সামনের দিকে অগ্রসর হতে চায়। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ভারতের সঙ্গে এসিডি ও অন্যান্য আঞ্চলিক সহযোগিতা ফোরামে কাজ করবে। ’ ইয়েমেন থেকে সম্প্রতি বাংলাদেশি অভিবাসী শ্রমিকদের ফেরত আনার ব্যাপারে সহযোগিতার জন্য তিনি ভারতের প্রতিমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

এর আগে শাহরিয়ার আলম এসিডি সম্মেলনে সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রতিনিধিদলের প্রধান এবং সে দেশের জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশবিষয়ক মন্ত্রী ড. থানি বিন আহমেদ আল-জাউদির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন, ইউএই বাংলাদেশের অভিবাসীদের জন্য শ্রমবাজার খুলে দেবে। জবাবে ইউএই মন্ত্রী আশ্বস্ত করে বলেন, সে দেশে কৃষি ও মত্স্য খাতে বিদেশি শ্রমিকের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় ভবিষ্যতে বাংলাদেশের শ্রমিক নিয়োগের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী এসিডি বিজনেস কানেক্ট ফোরামে অংশ নেন। সম্মেলনে এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মাতলুব আহমাদের নেতৃত্বে বাংলাদেশের একটি বেসরকারি প্রতিনিধিদল অংশগ্রহণ করছে। সূত্র : বাসস।


মন্তব্য