kalerkantho


গোলটেবিল বৈঠকে অভিমত

চীনের সঙ্গে ঋণের আলোচনায় সতর্ক থাকতে হবে আমাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নে চীনের বাড়তি আগ্রহ দৃশ্যমান। চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিংয়ের আসন্ন ঢাকা সফরে সে সুবাদে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বড় পরিবর্তনের সম্ভাবনা রয়েছে। এ সফরের সুফল পেতে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে দরকষাকষির পাশাপাশি বাংলাদেশকে দক্ষতার পরিচয় দিতে হবে। চীনের সঙ্গে বড় প্রকল্পের ঋণের আলোচনায় সতর্ক থাকতে হবে আমাদের। গতকাল সোমবার এক গোলটেবিল বৈঠকে এ অভিমত দিয়েছেন আলোচকরা।

রাজধানীর ডেইলি স্টার ভবনে গতকাল অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘বাংলাদেশ-চায়না রিলেশনস : কানেকটিং টু ইকনোমিকস’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন আয়োজক ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম। বৈঠকে বিনিয়োগ, বাণিজ্য ও যোগাযোগ বিষয়ে তিনটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হয়।

গোলটেবিল বৈঠকে আলোচনায় অংশ নেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) নির্বাহী পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান, বিসের রিসার্চ ফেলো মাহফুজ কবীর, বিলিয়ার রিসার্চ অ্যাসোসিয়েট নুর মোহাম্মদ সরকার, সাবেক পররাষ্ট্র সচিব ফারুক সোবহান, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক আইনুন নিশাত, বিসের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মুন্সি ফয়েজ আহমেদ, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা তপন চৌধুরী, ঢাকায় সিঙ্গাপুরের কনসাল ডেরিল লাউ, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক নুরুল ইসলাম প্রমুখ।

বৈঠকে আলোচকরা বলেন, চীনের প্রেসিডেন্টের সফরে অত্যন্ত ব্যয়বহুল কিছু প্রকল্প চূড়ান্ত করার কথা বলা হচ্ছে। সেগুলো নিয়ে আলোচনা সতর্কতার সঙ্গে করতে হবে।

কারণ, এসব প্রকল্পের অর্থ আমাদের ফেরত দিতে হবে। যদিও বাংলাদেশে অনেক বেশি বিদেশি ঋণ নেওয়ার ক্ষমতা রাখে। তার পরও এই ঋণের আলোচনা সতর্কতার সঙ্গে করতে হবে।


মন্তব্য