kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যশোরে নেতৃত্ব দ্বন্দ্বে আটকা ১০ টাকার চাল বিক্রি

ফখরে আলম, যশোর   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যানদের দ্বন্দ্বের কারণে যশোরে বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১০ টাকা কেজি চাল বিতরণের জন্য এখনো ডিলার নিয়োগ দেওয়া হয়নি। একই কারণে কোনো কোনো এলাকায় এখনো হতদরিদ্রদের তালিকাও তৈরি হয়নি।

এ ছাড়া যেসব ইউনিয়নে ডিলার নিয়োগ হয়েছে, সেসব ইউনিয়নেও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর মধ্যেই গত শুক্রবার শার্শা উপজেলার লক্ষ্মণপুর ইউনিয়নে দুই পক্ষের সংঘর্ষে পাঁচজন আহত হয়েছে।

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, যশোরে এক লাখ ৩৫ হাজার ১৩২ জন দরিদ্র মানুষকে ১০ টাকা কেজি চাল দেওয়া হবে। কিন্তু  সদর উপজেলার ১৮ হাজার ২৯০ জনের বিপরীতে তালিকা তৈরির কাজ শেষ হয়েছে ১০ হাজার ২৯০ জনের। মণিরামপুরের ২৩ হাজার ৪১৯ জনের মধ্যে ১৫ হাজার ৪৩৬ জনের, ঝিকরগাছায় ২২ হাজার ১৭৫ জনের মধ্যে ১৩ হাজার ৯৮১ জনের এবং চৌগাছায় ১৪ হাজার ৯৯৭ জনের মধ্যে ১০ হাজার ৫২১ জনের নামের তালিকা করা হয়েছে। বাকি তালিকাগুলো স্থানীয় আওয়ামী লীগের বিরোধে আটকে আছে।

এ ছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরোধের কারণে অনেক স্থানে ডিলার নিয়োগের কাজ এখনো শেষ হয়নি। মণিরামপুর উপজেলার দুর্বাডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সরদার বাহাদুর আলী বলেন, ‘আমার ইউনিয়নে এক হাজার ৩৯২ জনের তালিকা তৈরি করে জমা দিয়েছি। কিন্তু ৫০০টি কার্ডের বিপরীতে একজন হিসেবে তিনজন ডিলার নিয়োগ হওয়ার কথা থাকলেও একজনকে এখনো নিয়োগ দেওয়া হয়নি। কার্ডের ওপর কোন ডিলারের কাছ থেকে চাল উত্তোলন করতে হবে তা উল্লেখ করার নিয়ম রয়েছে। তাই ডিলার নিয়োগ না হওয়ায় গ্রাহকদের মাঝে কার্ড বিলি করা যাচ্ছে না। ’

সদর উপজেলার আরবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম বলেন, ‘আমার ইউনিয়নে এখনো চাল বিক্রি শুরু হয়নি। তবে সব তালিকা তৈরির কাজ শেষ হয়েছে। দু-এক দিনের মধ্যে ডিলাররা চাল উত্তোলন করলে আনুষ্ঠানিকভাবে চাল বিক্রি শুরু করা হবে। ’

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কামাল হোসেন বলেন, ‘প্রথম দফায় সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বর মাসে চাল বিক্রি করা হবে। এই সময়ের মধ্যে ডিলাররা চাল উত্তোলন না করলে পরবর্তী সময়ে আর চাল দেওয়া হবে না। ’

এদিকে শার্শা উপজেলার লক্ষ্মণপুর ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রামে ১০ টাকার চাল বিতরণের তালিকা নিয়ে গত শুক্রবার সংঘর্ষ হয়েছে। তালিকা নিয়ে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন শান্তি ও অভিযোগকারী দুর্গাপুর গ্রামের শফিকুল ইসলামের লোকজনের সঙ্গে এ সংঘর্ষ হয়।


মন্তব্য