kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ছুটি কাটাতে সঙ্গে রাখুন

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ছুটি কাটাতে সঙ্গে রাখুন

ছুটি কাটাতে আপনি দেশে ও বিদেশে যেখানেই যান না কেন, কিছু জিনিস রাখা প্রয়োজন হাতের কাছেই। এ জিনিসগুলো আপনাকে নানা বিপদে-আপদে সহায়তা করবে।

এ লেখায় তুলে ধরা হলো তেমন ১০ জিনিস—

১. গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র : দেশের ভেতর ভ্রমণের ক্ষেত্রে আপনার পাসপোর্ট-ভিসা প্রয়োজন না হলেও ঝামেলা এড়াতে গাড়ি কিংবা বিমানের টিকিট, ন্যাশনাল আইডি ইত্যাদি কাগজপত্র সঙ্গে রাখা উচিত। এ ছাড়া আপনি যদি বিদেশে ভ্রমণে যান, তাহলে অবশ্যই পাসপোর্ট-ভিসা, বুকিং ইত্যাদি কাগজপত্র সঙ্গে রাখার পাশাপাশি বাড়িতেও অন্তত একটি ফটোকপি রেখে যাবেন। এ ছাড়া চাইলে এগুলো স্ক্যান করে ই-মেইলে উঠিয়ে রাখতে পারেন। এতে বিদেশে গিয়ে কাগজপত্র হারিয়ে গেলেও বহু ঝামেলা থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

২. আরামদায়ক পোশাক : ভ্রমণের সময় আরামদায়ক পোশাক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে ভ্রমণের সময় আপনার ফরমাল পোশাক পরার প্রয়োজন হবে না। তাই ব্যাগে বাড়তি ওজন বহন না করে বরং কিছু আরামদায়ক পোশাক নিন। এ ছাড়া কোথায় যাচ্ছেন এ বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি পাহাড়ে ট্র্যাকিং করতে যান, তাহলে সেখানকার প্রয়োজন অনুযায়ী পোশাক ও জুতা নিতে হবে। সমুদ্রের ধারে কিংবা আর্দ্র এলাকায় ভ্রমণে গেলে এমন পোশাক নিতে হবে, যা পানিতে ভিজে গেলেও সহজে শুকিয়ে যাবে।

৩. অর্থ : আপনার ভ্রমণের সময় পর্যাপ্ত অর্থ সঙ্গে রাখুন। এ ক্ষেত্রে নগদ অর্থ ছাড়াও এটিএম কার্ড কিংবা ট্রাভেলার্স চেক রাখার কথা ভাবতে পারেন। তবে যে মাধ্যমেই অর্থ নিন না কেন, একমাত্র উপায়ের ওপর নির্ভর না করে কয়েকটি মাধ্যম ব্যবহার করুন।

৪. ম্যাপ ও গাইড বই : নতুন স্থানে ভ্রমণের ক্ষেত্রে আপনি দর্শনীয় স্থান ও বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা সম্পর্কে নাও জানতে পারেন। কখনো কখনো মানুষের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় সহায়তা নাও পেতে পারেন। তাই ভ্রমণ উপভোগ্য করার জন্য ম্যাপ ও গাইড বই থেকে সহায়তা নিন।

৫. প্রাথমিক চিকিৎসা : ভ্রমণের সময় প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য সামান্য কিছু সরঞ্জাম আপনার ব্যাগের সুবিধাজনক স্থানে রাখুন। এ সরঞ্জামের মধ্যে থাকতে পারে আপনার প্রয়োজনীয় কোনো ওষুধ। এ ছাড়া রাখতে পারেন ব্যান্ডেজ, মাথাব্যথা, জ---র ও পেটে গণ্ডগোলের ওষুধ।

৬. বই : ভালো বই হতে পারে আপনার ভ্রমণের সঙ্গি। বাসে কিংবা বিমানে একটি বই আপনার দারুণ সময় কাটাতে সহায়তা করবে। তবে বইটি যেন ব্যাগ ভারী না করে, সে জন্য হালকা-পাতলা দেখে বেছে নিন।

৭. গ্যাজেট : মোবাইল ফোন, ক্যামেরা ও ট্যাব অনেকেরই নিত্যসঙ্গী। তাই এগুলো আগেই গুছিয়ে রাখুন। পাশাপাশি খেয়াল রাখুন ক্যামেরার মেমোরি কার্ড ও মোবাইল-ট্যাবের চার্জার যেন সঙ্গেই থাকে। নাহলে ভ্রমণের সময় এগুলোর অভাবে ভোগান্তি হতে পারে।

৮. জরুরি জিনিস : আপনি যে স্থানে যাচ্ছেন সেখানকার প্রয়োজন অনুযায়ী জরুরি কয়েকটি জিনিস সঙ্গে রাখুন। এসব জিনিসের মধ্যে থাকতে পারে টুপি, রেইন কোট, ছাতা, সানগ্লাস, টর্চ, শোর কয়েল, দিয়াশলাই ইত্যাদি।

৯. খেলার সরঞ্জাম : যদি কয়েকজন একত্রে ভ্রমণ করেন, তাহলে খেলাধুলার জন্য কিছু জিনিস সঙ্গে নিতে পারেন। এটি ভ্রমণের সময়টি দারুণ কাটবে। এ ক্ষেত্রে একটি বল, ব্যাট কিংবা এক প্যাকেট কার্ড দারুণ কাজে লাগতে পারে।

১০. প্রসাধনী ব্যাগ : ভ্রমণের সময় জরুরি কিছু প্রসাধনী সামগ্রী প্রয়োজন হবে। এ জিনিসপত্রের মধ্যে রয়েছে টুথপেস্ট, ব্রাশ, ফেসওয়াশ, শ্যাম্পু ও পারফিউম। এ ছাড়া চিরুনি, কোল্ড ক্রিম, সানস্ক্রিন ইত্যাদি প্রয়োজন অনুযায়ী রাখতে পারেন। তবে ভ্রমণের সুবিধার্থে কোনো প্রসাধনীরই বড় প্যাক নয়, ছোট ছোট প্যাক নিন।

হিন্দুস্তান টাইমস অবলম্বনে ওমর শরীফ পল্লব


মন্তব্য