kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সাকার রায়ের খসড়া ফাঁস মামলা

দণ্ডিত আইনজীবী মেহেদী জেলে

আদালত প্রতিবেদক   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর রায়ের খসড়া ফাঁসের মামলায় দণ্ডিত আসামি অ্যাডভোকেট মেহেদী হাসানকে কারাগারে পাঠিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালের বিচারক কে এম শামসুল আলম গতকাল রবিবার এই আদেশ দিয়েছেন।

সাত বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত এই আসামি এর আগে ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন।

ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি নজরুল ইসলাম শামীম জানান, আত্মসমর্পণকারী এই আসামি মামলার প্রথম থেকেই পলাতক ছিলেন।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর মামলাটিতে ওই আসামিসহ চারজনকে সাত বছর করে কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। এ ছাড়া সাকা চৌধুরীর আইনজীবী ব্যারিস্টার ফখরুল ইসলামকে ১০ বছর কারাদণ্ড ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেন। একই মামলায় সাকার স্ত্রী ফারহাত কাদের চৌধুরী ও ছেলে হুমাম কাদের চৌধুরীকে বেকসুর খালাস দেন ট্রাইব্যুনাল।

এই মামলার বিচার চলাকালে চার্জশিটভুক্ত ২৫ জনের মধ্যে ২১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। চলতি বছরের গত ১৫ ফেব্রুয়ারি আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন ট্রাইব্যুনাল। মামলায় ২০১৪ সালের ২৮ আগস্ট ডিবির ইন্সপেক্টর মো. শাহজাহান তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

প্রসঙ্গত, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ২০১৩ সালের ১ অক্টোবর বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন কাদেরকে মৃত্যুদণ্ড দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। তবে রায় ঘোষণার আগের দিন দণ্ডিতের স্ত্রী ও পরিবারের সদস্য এবং আইনজীবীরা রায়ের খসড়া ফাঁসের অভিযোগ তোলেন। তাঁরা ‘রায়ের খসড়া কপি’ও সংবাদকর্মীদের দেখান। ওই ঘটনায় ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার এ কে এম নাসির উদ্দিন মাহমুদ বাদী হয়ে ওই বছরের ২ অক্টোবর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করেন।


মন্তব্য