kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


২৩৬৭ জন মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ে হাইকোর্টের দেওয়া রায় স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বিশেষ গেরিলা বাহিনীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিষয়ে হাইকোর্টের দেওয়া রায় আপিল বিভাগ স্থগিত করেছেন। গতকাল রবিবার আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী রায় স্থগিতের পাশাপাশি সরকারের করা আবেদনের ওপর আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য ৩০ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন।

আদালত সূত্র জানিয়েছে, স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশ নেওয়া কমরেড মণি সিংহ, প্রফেসর মোজাফফর আহমেদ, পঙ্কজ ভট্টাচার্যসহ দুই হাজার ৩৬৭ জনের নাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে বাদ দিয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর প্রজ্ঞাপন জারি করে। নামগুলো ত্রুটিপূর্ণভাবে প্রকাশিত হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে দাবি করা হয়। এ প্রজ্ঞাপন বাতিল চেয়ে রিট আবেদন হলে প্রাথমিক শুনানি শেষে হাইকোর্ট ২০১৫ সালের ১৯ জানুয়ারি এক আদেশে মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার আদেশের কার্যকারিতা স্থগিত করেন। একই সঙ্গে সরকারের ওই আদেশ কেন অবৈধ ও বাতিল করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়। এ রুলের ওপর শুনানি শেষে হাইকোর্ট মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনকে অবৈধ ঘোষণা করে গত ৮ সেপ্টেম্বর রায় দেন। রায়ে তাঁদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সব সুযোগ-সুবিধা ও ভাতা দিতে সরকারকে নির্দেশ দেওয়া হয়। হাইকোর্টের রায় স্থগিত করতে সরকারপক্ষ গত ২৪ সেপ্টেম্বর আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালতে আবেদন করে। এরই সূত্রে গতকাল স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়েছে। আদালতে সরকারপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা এবং রিট আবেদনকারীপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী।

রিট আবেদন সূত্রে জানা গেছে, ১৯৭২ সালের ৩০ জানুয়ারি জাতীয় স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে বঙ্গবন্ধুর কাছে অস্ত্রসমর্পণ করে ছাত্র ইউনিয়নের বিশেষ গেরিলা বাহিনী। এরপর থেকে তারা মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃত ছিল। ২০১৩ সালের ২২ জুলাই জাতীয় গেজেটে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ওই বিশেষ গেরিলা বাহিনীর দুই হাজার ৩৬৭ জনের নাম তালিকাভুক্ত হয়। পরে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তাঁদের নাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে বাদ দেয়।


মন্তব্য