kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সুপারহিরো প্রতিযোগিতা

সেরা নায়ক হলেন বাঁধন

নওশাদ জামিল   

৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সেরা নায়ক হলেন বাঁধন

ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার নবরাত্রি হলে গতকাল রাতে অনুষ্ঠিত হয় ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী মেন চ্যানেল আই হিরো, পাওয়ার্ড বাই বাংলাদেশ আর্মি প্রতিযোগিতার গ্র্যান্ড ফিনালে। ছবি : কালের কণ্ঠ

আকাশছোঁয়া স্বপ্ন ছিল তাঁদের। সঙ্গে ছিল প্রতিভা।

ছিল শারীরিক ও মানসিক দৃঢ়তা। স্বপ্ন আর প্রতিভার ঝলকানিতে ৩০ হাজার প্রতিযোগীর মধ্যে একজনকে নির্বাচন করা হবে ‘নায়ক’ হিসেবে। কে হবেন আগামীর নায়ক? কে হবেন তরুণদের আইডল? নায়করা চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে প্রস্তুত থাকেন সব সময়। তাঁদের পর্দায় দেখে অনুপ্রাণিত হয় তরুণ প্রজন্ম। সেই নায়কের খোঁজে গতকাল শনিবার অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী মেন চ্যানেল আই হিরো, পাওয়ার্ড বাই বাংলাদেশ আর্মি’ শিরোনামের জমজমাট গ্রান্ড ফিনালে প্রতিযোগিতা। তাতে বিভিন্ন পর্ব পেরিয়ে নির্বাচন করা হয় চলচ্চিত্রের জন্য একজন সুপারহিরো। সেই ‘নায়ক’ শিগগিরই ইমপ্রেস টেলিফিল্মের চলচ্চিত্রে অভিনয় করবেন। আত্মপ্রকাশ করবেন রুপালি পর্দার নায়ক হিসেবে।

এ প্রতিযোগিতায় সেরা নায়ক হলেন বাঁধন। পুরস্কার হিসেবে তিনি পেয়েছেন একটি গাড়ি ও এক লাখ টাকা। সেরা হওয়ার সুবাদে এই সুদর্শন তরুণ সুযোগ পেলেন হুমায়ূন আহমেদ রচিত ও মেহের আফরোজ শাওন পরিচালিত ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত ‘নক্ষত্রের রাত’ চলচ্চিত্রে নায়ক চরিত্রে অভিনয় করার সুযোগ। তাঁর বিপরীতে নায়িকা হিসেবে অভিনয় করবেন মাহিয়া মাহি।

প্রতিযোগিতায় প্রথম রানার আপ হয়েছেন পূষণ। তাঁর হাতে পুরস্কার হিসেবে তুলে দেওয়া হয় দুই লাখ টাকার চেক। দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছেন তন্ময়। তিনি পেয়েছেন এক লাখ টাকার চেক। এ ছাড়া এই দুই প্রতিযোগী আগামী এক বছর ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত নাটক ও টেলিফিল্মে অভিনয় করার সুযোগ পাবেন। প্রতিযোগিতায় অন্য ফাইনালিস্ট ছিলেন নীল ও সজীব।

রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার নবরাত্রি হলে প্রতিযোগিতার গালা রাউন্ডে তাঁদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর লেফলেন্যান্ট জেনারেল সাব্বির আহমেদ ও ইউনিলিভার বাংলাদেশের ব্র্যান্ড বিল্ডিং ডিরেক্টর জাভেদ আখতার।   এ সময় প্রতিযোগিতার প্রধান দুই বিচারক চিত্রনায়ক রিয়াজ ও চিত্রনায়িকা তানিয়া আহমেদ এবং চূড়ান্ত পর্বের অতিথি বিচারক চিত্রনায়ক ফেরদৌস উপস্থিত ছিলেন।

নায়কের সন্ধানে এরই মধ্যে ১৫টি পর্ব পেরিয়ে আসা পাঁচ চৌকস তরুণ অংশ নেন চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায়। অভিনয়, অ্যাকশন, র‌্যাম্প মডেলিং, ফটোশুটসহ বিভিন্ন ধাপ পেরিয়ে বিচারকদের রায়ের ভিত্তিতে নির্বাচন করা হয় সেই নায়ককে। গতকাল প্রতিযোগিতার গ্র্যান্ড ফিনালে পর্বে অংশ নেন পাঁচ প্রতিযোগী। তাঁরা হলেন বাঁধন, নীল, তন্ময়, পূষণ ও সজীব।

গতকাল সন্ধ্যায় রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার নবরাত্রি হলে অনুষ্ঠিত হয় ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী মেন চ্যানেল আই হিরো, পাওয়ার্ড বাই বাংলাদেশ আর্মির প্রথম হিরো প্রতিযোগিতার গ্র্যান্ড ফিনালে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রতিযোগিতার আয়োজক প্রতিষ্ঠান ইউনিলিভারের ব্র্যান্ড বিল্ডিং ডিরেক্টর জাভেদ আকতার, চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর। এ ছাড়া এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিলিভার বাংলাদেশ, চ্যানেল আই এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা।

গত ২৯ জুন শুরু হয়ে এ প্রতিযোগিতার ১৫টি পর্ব সম্পন্ন হয়। অসংখ্য প্রতিযোগীর মধ্য থেকে বিভিন্ন টাস্কের মাধ্যমে প্রথমে বাছাই করা হয় সেরা পনেরো। এই সেরা পনেরো বাংলাদেশ আর্মির তত্ত্বাবধানে বিভিন্ন রকম টাস্ক শেষ করে। পুরো ব্যাপারটাই তাঁদের জন্য ছিল খুবই কষ্টসাধ্য। এঁদের মধ্য থেকে বাছাই করা সেরা দশজনের ভেতর থেকে নাচ, অ্যাকশন, অভিনয়, র‌্যাম্প মডেলিং, ফটোশুট ও টিভিসিতে অভিনয়ের চ্যালেঞ্জ  শেষে নির্বাচন করা হয় সেরা পাঁচজনকে।   এই পাঁচজনকে নিয়েই অনুষ্ঠিত হয় গ্র্যান্ড ফিনালে।

প্রতিযোগিতার বিভিন্ন পর্বে ভূমিকা রেখেছেন দেশের নামকরা শিল্পীরা। প্রধান বিচারক হিসেবে ছিলেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক রিয়াজ এবং অভিনেত্রী তানিয়া আহমেদ।


মন্তব্য