kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কর সমতার কাজ শুরু ডিএনসিসি ও ডিএসসিসির

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



কর সমতার কাজ শুরু ডিএনসিসি ও ডিএসসিসির

দীর্ঘ সময় পর রাজধানীর হোল্ডিং ট্যাক্সে সমতা আনতে কাজ শুরু করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। ডিএনসিসি কর্তৃপক্ষ উত্তরা থেকে আর ডিএসসিসি কর্তৃপক্ষ অঞ্চল-১ ও ২ থেকে সম্প্রতি এ লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছে।

এদিকে দুই সিটি করপোরেশনের এই পদক্ষেপ নিয়ে অনেক বাড়িমালিক আপত্তি তুলেছেন। তাঁদের অভিযোগ, করপোরেশন করে সমতা আনার নামে মূলত হোল্ডিং ট্যাক্স বাড়িয়ে রাজস্ব বৃদ্ধির পদক্ষেপ নিয়েছে। অথচ চলতি অর্থবছরের বাজেট অনুষ্ঠানে সংস্থা দুটির মেয়র হোল্ডিং ট্যাক্স বাড়ানোর কোনো ইঙ্গিত দেননি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএসসিসির প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল বলেন, ‘আমরা নতুন করে কোনো বাড়ি বা প্রতিষ্ঠানের ট্যাক্স বাড়াতে চাই না। দীর্ঘ সময় আগে করা ট্যাক্সের মধ্যে পরস্পর সমতা আনতেই এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ’ উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ‘দেখা গেছে একই এলাকায় পাশাপাশি হোল্ডিংয়ের করের ক্ষেত্রেই বৈষম্য রয়েছে। এটা নিয়ে বিভিন্ন সময় আমাদের কাছে কিছু অভিযোগও আসে। এখন আমরা পরিকল্পনা করেছি, যাঁরা ন্যায্য কর দিচ্ছেন তাঁদের বাড়ানো হবে না। আর যাঁরা তুলনামূলক কম কর দিচ্ছেন তাঁদের কর বাড়িয়ে একটি সমতায় নিয়ে আসা হবে। ’

ডিএনসিসির সচিব নবীরুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা ডিএনসিসির পুরো এলাকায় কাজ শুরু করেছি। ইতিমধ্যে উত্তরা এলাকায় আমাদের জরিপ শেষ হয়েছে। এখন শুরু হবে গুলশানে। মূলত ডিএনসিসির সব হোল্ডিং আমরা মাপজোখ করে কর নির্ধারণ করব। এতে নতুন আর পুরনো ভবনের মধ্যে কোনো বৈষম্য থাকবে না। আর আমরাও সঠিক রাজস্ব পাব। ’

সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ ২৫ বছর আগে ধার্য করা ট্যাক্স দিয়ে যাচ্ছেন বাড়ির মালিকরা। এখন যাঁরা নতুন বাড়ি তৈরি করেছেন তাঁরা পুরনো বাড়ির মালিকের তুলনায় বেশি কর দিচ্ছেন। তাই পুনর্মূল্যায়ন করে সমকর নির্ধারণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ জন্য সম্প্রতি অঞ্চলভিত্তিক গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এরই মধ্যে ডিএনসিসির এলাকায় পুরোদমে ট্যাক্স সমতার কাজ শুরু হয়েছে। আর ডিএসসিসি প্রাথমিকভাবে অঞ্চল-১ ও ২ এলাকায় কাজ শুরুর প্রক্রিয়া চলাচ্ছে।

‘দ্য মিউনিসিপাল করপোরেশন (ট্যাক্সেসান) রুলস ১৯৮৬’-এর ২১ বিধি অনুযায়ী ২০১৬-১৭ অর্থবছর থেকে বিভিন্ন ভবন, বাড়ি, ফ্ল্যাট

বা হোল্ডিংয়ের ক্ষেত্রে সমতা আনতে কর পুনর্মূল্যায়ন করা হচ্ছে।

এর মাধ্যমে ডিএসসিসি ও ডিএনসিসির রাজস্ব খাতে আয় বৃদ্ধির সুযোগ রয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।


মন্তব্য