kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মহাসড়কে ভাগাড় দীর্ঘ গাড়িজট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



মহাসড়কে ভাগাড় দীর্ঘ গাড়িজট

রামপুরা-বারিধারা সড়কে মধ্য বাড্ডায় রাস্তার প্রায় পুরোটা জুড়ে ছড়িয়ে থাকা আবর্জনা দিনের বেলা পরিষ্কারে ব্যস্ত সিটি করপোরেশনের কর্মীরা। ফলে দিনভর লেগে থাকছে যানজট। ছবি : কালের কণ্ঠ

রাজপথ থেকে গলি-উপগলি সবখানেই যানজট। বাস, প্রাইভেট কার, অটোরিকশা আর রিকশায় বসে ঘামছে মানুষ।

কতক্ষণে এই জট খুলবে, প্রয়োজনের কাজটা সময়ে করা যাবে কি? সে চিন্তায় চোখ যাচ্ছে বারবার হাতঘড়ির দিকে। রাজধানী ঢাকার এমন দৃশ্য প্রতিদিনের। এমনকি ছুটির দিনেও যানজটে কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সপ্তাহের শেষ কর্মদিবসে সকাল থেকেই যানজট পরিস্থিতি প্রকট রূপ নেয়। শাহবাগ, ফার্মগেট, মহাখালী, মিরপুর সড়ক, শান্তিনগর, মৌচাক, বাড্ডা সর্বত্রই ভয়াবহ পরিস্থিতি দেখা যায়। যানজট পরিস্থিতি যেন কোনোভাইে মোকাবিলা করা যাচ্ছে না। সমস্যা নিরসনে উপায় খুঁজে বের করতে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত অফিসে বসেও ঘামছেন দায়িত্বশীলরা। রাস্তার তুলনায় গাড়ির সংখ্যা বেশি, মূল সড়কে রিকশা চলাচলের কারণে ধীরগতি, ট্রাফিক আইন না মানা, যত্রতত্র গাড়ি থামিয়ে যাত্রী তুলছে বাসগুলো—এমন নানা কারণ নিয়ে চলছে আলোচনা। কিন্তু ব্যস্ততম সড়কে ময়লা-আবর্জনার ভাগাড়ও পথচলতি মানুষকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে ফেলে ভোগাতে পারে—এমন ভাবনা বুঝি নগর পরিকল্পনাবিদদের মাথায়ও আসেনি। রামপুরা-বারিধারা সড়কের মেরুল বাড্ডা, মধ্যবাড্ডা এমনকি বারিধারার মতো ব্যস্ততম সড়কে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ যেন যানজট বাড়িয়ে দিচ্ছে বহুগুণে। আর তাতে জোর হাওয়া দিচ্ছে সিটি করপোরেশনের আবর্জনা পরিষ্কারের দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মীরা। আবর্জনার স্তূপ রাস্তা দখল করায় রাস্তায় গাড়ি চলাচলের অংশ কমে গেছে। গতকাল সকাল থেকে রাত পর্যন্ত এই আবর্জনার কারণে এবং কখনো ময়লা সরানোর গাড়ি যানজটের দুর্ভোগ আরো বাড়িয়েছে। এই আবর্জনার স্তূপ সরানো হলেই যান চলাচল সহজ হতো, তবু সংশ্লিষ্টরা নীরব-উদাসীন।

গতকাল বিকেলে বাড্ডার এই ভাগাড়ের জন্য যানজটে আটকা ছিলেন আলী আকবর। অটোরিকশাচালক আকবর কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘দেড় ঘণ্টা ধরে বইসা আছি। চাকা নড়তাছে না। কিন্তু কে শোনে কার কথা? দীর্ঘদিন ধরে এমন পরিস্থিতি চললেও যেন দেখার কেউ নেই। ’ 


মন্তব্য