kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে মেয়র আনিসুল

নিরাপত্তাব্যবস্থায় বিদেশিদের মধ্যে স্বস্তি এসেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক বলেছেন, গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর গুলশান-বনানী-বারিধারা এলাকায় অবস্থানরত কূটনীতিক ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে এক ধরনের ভীতি সৃষ্টি হয়েছিল। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কঠোর নিরাপত্তা ও তত্পরতায় সেই ভীতি দূর হয়েছে।

গতকাল বুধবার গুলশান-২-এ নগর ভবনে ঢাকায় অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, হাইকমিশনার,   বিদেশি ক্রেতা সংস্থার প্রতিনিধি, মহানগরীর আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের সমন্বয়ে ‘লাইফ অ্যান্ড বিজনেস এস ইউজুয়্যাল’ শীর্ষক বিশেষ আলোচনা সভা শেষে মেয়র এ কথা বলেন।

মেয়র আনিসুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা এস বার্নিকাট, অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার এইচ ই জুলিয়া নাবিলেট, ব্রিটিশ হাইকমিশনার এলিসন বালাকি, কানাডার হাইকমিশনার বেনিয়ইট পিয়ের লারমি, ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত মাইকেল হেমিনিট উইন্টার, ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াদু, জার্মানির রাষ্ট্রদূত থমাস এইচ প্রিনজ, ইতালির রাষ্ট্রদূত মারিও পামা, জাপানের রাষ্ট্রদূত মাসাতাও ওতানাবি, কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত এএইচএন সিয়ং ডু, সুইডেনের রাষ্ট্রদূত জোহান ফ্রিসেল, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের (উত্তর) সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ এমপি, এনএসআই মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শামছুল হক, ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আসাদুজ্জামান মিয়া, সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ টি এম শামছুল হুদা, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা মঞ্জুরে ইলাহী, বিজিএমএইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, এফবিসিসিআই সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ প্রমুখ।

আনিসুল হক বলেন, ‘হলি আর্টিজানে জঙ্গি  হামলার পর অনেক বিদেশি চলে গিয়েছিলেন। তাঁরা আবার ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছেন। আশা করছি নিরাপত্তাব্যবস্থায় বিদেশিরা অনেকটা সন্তুষ্ট। ’


মন্তব্য